corona virus btn
corona virus btn
Loading

আরোগ্য কামনায় সিউড়ি, বাল্যবন্ধু চাইছেন তাড়াতাড়ি সুস্থ হন প্রণব

আরোগ্য কামনায় সিউড়ি, বাল্যবন্ধু চাইছেন তাড়াতাড়ি সুস্থ হন প্রণব

ষষ্ঠীকিংকর বলছেন, ‘‌আমি ওঁর আরোগ্য কামনা করি। আমি চাই ও দ্রুত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরুক।’‌

  • Share this:

#‌সিউড়ি:‌ সিউড়ি কলেজে পড়াশোনা করেছেন চার বছর। তারপর তাঁদের জীবনের গতি হয়ত অন্য খাতে বয়ে গিয়েছে, কিন্তু বাল্যবন্ধু প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অসুস্থতার কথা শুনে উদ্বিগ্ন সিউড়ির ষষ্ঠীকিংকর দাস। যত বছরই পেরিয়ে যাক না কেন, শেষ পর্যন্ত তো বন্ধু। ১৯৫২ সালে সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। সেখানেই তাঁর সহপাঠী ছিলেন ষষ্ঠীকিংকর দাস। আজ এতদিন পরে এসেও বন্ধুত্বের সুতো ছিঁড়ে যায়নি মোটে। বরং যেন আরও শক্ত হয়ে আছে। তাই আজও ষষ্ঠীকিংকরের মন উদ্বীগ্ন হয়ে আছে বন্ধু প্রণবের জন্য। তাঁর অসুস্থতার খবর শোনার পর থেকে স্থির হয়ে বসতে পারছেন না। বারবারই বলছেন, ‘‌ও যেন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরে।’‌

দিল্লির সর্বোচ্চ পদে আসীন বন্ধু যখন রাষ্ট্রপতিত্ত্বের মেয়াদ শেষ করেছেন, তখনও একেবারে নির্বিকার ছিলেন। সাংবাদিকরা তাঁকে জিজ্ঞাসা করতে তিনি বলেছিলেন, একটা আত্মজীবনী লিখতে চান। যাঁরা প্রণব মুখোপাধ্যায়কে চেনেন, তাঁরা সকলেই জানেন, সেই আত্মজীবনীতে নিশ্চিত থাকবে কলেজের বন্ধুদের নাম, থাকবেন ষষ্ঠীকিংকর। সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজের ছাত্রাবস্থার পর, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়েও তাঁরা একসঙ্গে পড়েছেন। ফলে যৌবনের অনেকটা সময় তাঁরা একসঙ্গে কাটিয়েছেন। তাই এখন, বার্ধক্যে কাবু ষষ্ঠীকিংকর বাবুর ভয়, ও চিন্তা তাঁর বন্ধুকে নিয়ে যেন আরও বেশি। তবে এই বয়সে এসেও এখনও লড়াইয়ে বিশ্বাস আছে তাঁর। বন্ধু যে সুস্থ হয়ে ফিরবেনই, সে কথা জোর গলায় বলছেন তিনি। বলছেন, ‘‌আমি ওঁর আরোগ্য কামনা করি। আমি চাই ও দ্রুত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরুক।’‌

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: August 12, 2020, 4:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर