• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • West Bengal News: আর একটু পরেই বিয়ে, হঠাৎই হানা দিল প্রশাসনিক কর্তারা! তারপর...

West Bengal News: আর একটু পরেই বিয়ে, হঠাৎই হানা দিল প্রশাসনিক কর্তারা! তারপর...

প্রতীকী চিত্র

প্রতীকী চিত্র

West Bengal News: রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ২ ব্লকের বান্দিপুর ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাঁকরাতে এক নাবালিকা মেয়ের বিয়ে বন্ধ করল চন্দ্রকোনা ২ ব্লক প্রশাসন ও চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ।

  • Share this:

    #কলকাতা: বিয়ের সমস্ত আয়োজন রেডি, আর কয়েক ঘন্টার মধ্যে আসত পাত্রপক্ষ, বসত বিয়ের আসর, কিন্তু তারই মধ্যেই হঠাৎ করে বাদ সাধল প্রশাসন। প্রশাসনের আধিকারিকরা এসে বন্ধ করল বিয়ে। কারণ মেয়ে যে নাবালিকার ।

    রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ২ ব্লকের বান্দিপুর ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাঁকরাতে এক নাবালিকা মেয়ের বিয়ে বন্ধ করল চন্দ্রকোনা ২ ব্লক প্রশাসন ও চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ। জানা যায়, এদিন ঝাঁকরার বাসিন্দা নজরুল বায়েনের নাবালিকা মেয়ের বিয়ের আয়োজন হয় তার বাড়িতেই। পাত্রপক্ষ হাজির হওয়ার আগেই গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চন্দ্রকোনা ২ ব্লক প্রশাসন ও চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ হাজির হয় নজরুল বায়েনের বাড়িতে।

    যদিও পরিবারের লোকজনের দাবি, বিয়ের আয়োজন ছিল না। শুধুমাত্র পাকা কথা ও দেখার অনুষ্ঠান ছিল। সম্বন্ধ ঠিক হলে তারপরই বিয়ের দিন ঠিক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বাড়িতে রান্নাবান্না থেকে খাওয়াদাওয়ারও আয়োজন করা হয়েছিল মেয়ের বাড়ির তরফে। প্রশাসনের আধিকারিক বাড়িতে পৌঁছে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে বিয়ে বা এখন কোনও রকমের অনুষ্ঠানের আয়োজন থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়।

    আরও পড়ুন: লেপের তলায় চাপা পড়ে মৃত্যু শিশুর, আসল ঘটনা কিন্তু হাড়হিম করে দেবে!

    আরও পড়ুন: 'কলকাতার ১০ দিগন্ত'-তে তৃণমূল, তিলোত্তমা ভোল পাল্টে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি

    এমনকী ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত কোনও ভাবেই মেয়ের বিয়ে দেওয়া হবে না। এমনই মুচলেকাও নেওয়া হয় নাবালিকার বাবা নজরুল বায়েনের কাছ থেকে। জানা যায়, নজরুল বায়েনের নাবালিকা মেয়ের বয়স মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ড অনুযায়ী, বর্তমানে ১৭ বছর ৪ মাস ২৫ দিন। একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী, ডেবরার এক স্কুলে পড়াশোনা করে। নাবালিকার বাবা ও পরিবার প্রশাসনের নির্দেশ মেনে ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে দেবে না বলেই জানিয়েছেন।

    --- সুকান্ত চক্রবর্তী

    Published by:Suman Biswas
    First published: