বছরের প্রথম দিনেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ! বালিবোঝাই ট্রাক উল্টে পড়ল বাড়িতে

বছরের প্রথম দিনেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ! বালিবোঝাই ট্রাক উল্টে পড়ল বাড়িতে

ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটল গলসির শিকারপুরে। ঘুমন্ত অবস্থায় মৃত্যু হল শিশু-সহ ৫ জনের।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: বাড়ির ওপর উল্টে পড়ল বালি বোঝাই ট্রাক । নতুন বছরের শুরুতেই এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল একই পরিবারের পাঁচ জনের। দুর্ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমান জেলার গলসি থানার শিকারপুরে।

শিকারপুর এলাকার দামোদর নদের বালি খাদ থেকে বালি তুলে একটি ট্রাক গলসির দিকে যাওয়ার পথে রাস্তার পাশে একটি ঝুপড়ি বাড়ির উপর উল্টে যায়। ডাম্পারে মজুত সমস্ত বালিও উল্টে যায় ওই ঝুপড়ি বাড়িটির ওপর। সেই সময় ঘরে সকলেই ঘুমাচ্ছিলেন। বালি চাপা পড়ে দম বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয় পাঁচ জনের। আর এরপরেই উত্তেজিত জনতা বালি ঘাটের জে সি বি মেশিন, দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাক, বালি খাদের অফিস ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। সকালেও কয়েকটি ট্রাক ও ডাম্পারে আগুন ধরানো হয়।

রাত্রি দুটো নাগাদ দুর্ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, সেই সময় বাড়িতে ছ জন ঘুমাচ্ছিলো। এক জন্য ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায়। পাঁচ জন বালি চাপা পড়ে মারা যায়। স্থানীয়রা বালি সরিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে। মৃতদের নাম বাপি মন্ডল ও তার স্ত্রী দোলন মন্ডল,মেয়ে নন্দিনী মন্ডল, ছেলে আবির মন্ডল ও শাশুড়ি সুচিত্রা মন্ডল। আবিরের বয়স আড়াই বছর, মেয়ে নন্দিনী মন্ডলের  বয়স ৮ বছর।

2058_20200101_105813

উত্তেজিত জনতা খাদানে হামলা চালায় ৪-৫ টি জেসিপি মেসিন, ২টি ডাম্পার, ২ টি ট্র্যাক্টর , ৩ টি মোটল সাইকেল ও বালিঘাটের অফিসগুলিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পুলিশ গেলে মৃতদেহ তুলতে বাধা দেয় উত্তেজিত জনতা। স্থানীয়দের দাবি বালি ঘাট বন্ধ করতে হবে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত দুদিন গলসি এলাকার সমস্ত বালি ঘাট থেকে বালি বলা বন্ধ রাখা হয়েছিল। ফলে বালি ভর্তি কোনো গাড়ি গত দু’দিন ঘাটগুলি থেকে দিনের বেলায় বেরোতে পারেনি। মঙ্গলবার রাত গভীর হতেই কয়েকটি বালির গাড়ি বেরিয়ে পড়তে শুরু করে। শিকারপুর-গলসি রাস্তাটি সংকীর্ণ। তারমধ্যে গড়ির চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। সেটি রাস্তার ধারে ঝুপড়ি বাড়িটির ওপর এসে পড়ে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গাড়িটির মালিক মেমারি এলাকার বাসিন্দা। গলসি থানার পুলিশ ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাসিন্দাদের সঙ্গে উদ্ধার কাজে হাত লাগায়। কিন্তু অত্যাধিক বালি চাপা পড়ায় তা সরাতে সময় লেগে যায়। যদিও এরই মধ্যে ঘরে থাকা ৬ জনের মধ্যে একজন নিজেকে বাঁচাতে সক্ষম হন।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, এলাকায় বেআইনিভাবে বালি পাচার বেড়েই চলেছে। তাতে একদিকে যেমন সরকারের কোটি কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি পড়ছে তেমনই ঘটছে দুর্ঘটনাও। তারই পরিণতিতে নতুন বছরের শুরুতেই প্রাণ গেল একই পরিবারের পাঁচ জনের।

First published: 12:12:49 PM Jan 01, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर