দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

টোটোয় সবাই মাস্ক পরেছে কিনা, কতজন যাত্রী উঠছে ! খতিয়ে দেখছে বর্ধমান পুলিশ !

টোটোয় সবাই মাস্ক পরেছে কিনা, কতজন যাত্রী উঠছে ! খতিয়ে দেখছে বর্ধমান পুলিশ !

শর্ত মেনে টোটোয় যাত্রী পরিবহন চলছে কিনা তাও নজরদারির মধ্যে রাখছে পুলিশ।

  • Share this:

#বর্ধমান: মুখে মাস্ক বাঁধছেন তো সকলেই ? ই রিকশায় সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকছে তো? সেসব খতিয়ে দেখতে বর্ধমানের রাস্তায় নামল পুলিশ। বাড়তি যাত্রী নিয়ে ছোটার অপরাধে বেশ কয়েকটি টোটো আটক করা হয়েছে। মুখে মাস্ক না বেঁধেই টোটোয় উঠেছেন অনেকেই। টোটো দাঁড় করিয়ে সেই সব যাত্রী বা টোটো চালকদের মুখোশে মুখ ঢাকতে বাধ্য করছে পুলিশ। এমনই সব টুকরো টুকরো ছবি শুক্রবার দিনভর বর্ধমান শহরের রাজপথে ধরা পড়লো।

আনলক ওয়ানের হাত ধরে এখন পুরোপুরি স্বাভাবিক ছন্দে ফিরেছে বর্ধমান শহর। ফিরে এসেছে জনবহুল এলাকার চেনা যানজট, কোলাহল। ফুটপাত দখল করে হকারদের পসরা। দোকান খুলেছে সবাই। বাস চলাচল অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। ফলে শুধু শহরের বাসিন্দারাই নন, জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই জেলা সদরে এখন আসছেন অনেকেই। ফলে টোটোর চাহিদা বেড়েছে। রাস্তায় নেমে পড়েছে প্রচুর সংখ্যক টোটো। যাত্রী নিয়ে তারা ছুটছে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। সেইসব টোটো চালকদের বা যাত্রীদের অনেকেই মুখে মাস্ক পরতেও ভুলছেন এখন। তাদের সচেতন করতেই বাড়তি নজরদারি শুরু করলো পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ।

পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী বলেন, দোকান বাজার খুলেছে ঠিকই। তবে করোনার সংক্রমণের আশঙ্কাও থেকে যাচ্ছে। তাই বাসিন্দাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সচেতন ভাবে চলাফেরা করার অনুরোধ জানানো হচ্ছে। বাসিন্দাদের সচেতন করতেই পুলিশ রাস্তায় নেমেছে বলে জানিয়েছেন জেলাশাসক। এদিন শহরের কার্জন গেট, স্টেশন মোড়, বীরহাটা মোড় সহ জনবহুল এলাকা গুলিতে পুলিশের বাড়তি তৎপরতা লক্ষ্য করা গিয়েছে। মুখে মাস্ক নেই দেখলেই পথচলতি বাসিন্দাদের তা পরার জন্য অনুরোধ করছেন পুলিশকর্মীরা। মাস্ক না থাকলে রাস্তার ধারে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হচ্ছে ই রিকশা। কর্তব্যরত পুলিশ  অফিসাররা জানালেন, সচেতনতা গ্রহণ না করলে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে। বাসিন্দাদের সে ব্যাপারে সচেতন করতেই এই উদ্যোগ। এমনিতে এই পরিস্থিতিতে টোটোয় চালক ছাড়া দুজনের বেশি যাত্রী নেওয়ার কথা নয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, পাঁচ জন যাত্রী নিয়ে ছুটছে টোটো। তার ফলে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকছে না। গা ঘেঁষাঘেঁষি করে বসার ফলে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কাও থেকে যাচ্ছে। শর্ত মেনে টোটোয় যাত্রী পরিবহন চলছে কিনা তাও নজরদারির মধ্যে রাখছে পুলিশ।

SARADINDU GHOSH 

Published by: Piya Banerjee
First published: June 19, 2020, 8:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर