• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ঘরে প্রাণ হাসফাঁস, সকাল-সন্ধে বর্ধমানের গোলাপবাগে সবুজের টানে ভিড় করছেন বাসিন্দারা

ঘরে প্রাণ হাসফাঁস, সকাল-সন্ধে বর্ধমানের গোলাপবাগে সবুজের টানে ভিড় করছেন বাসিন্দারা

সবুজে সবুজ গোলাপবাগ।

সবুজে সবুজ গোলাপবাগ।

প্রাতঃভ্রমণ তো রয়েছেই সেইসঙ্গে বিকেল সন্ধ্যে কিছুটা অবসর কাটাতে আসছেন অনেকেই।

  • Share this:

#বর্ধমান: চারদিকে ইট-কাঠ কংক্রিটের জঙ্গল। তার মাঝে যেন মরুদ্যান। এখানে শুধুই সবুজের সমারোহ। সবুজ যে কত রকমের হয় তা মালুম হবে এখানে এলে। বহু প্রাচীন নানান গাছে ঘেরা শান্তির পরিবেশ। গোলাপবাগকে ভালোবেসে অক্সিজেন সিলিন্ডার বলেন বর্ধমানের বাসিন্দারা। সকাল সন্ধে মূল শহরের কোলাহল ছেড়ে রাজ্যের সবচেয়ে প্রাচীন এই বোটানিক্যাল গার্ডেনে আসছেন অনেকেই। প্রাতঃভ্রমণ তো রয়েছেই সেইসঙ্গে বিকেল সন্ধ্যে কিছুটা অবসর কাটাতে আসছেন অনেকেই।

বর্ধমানের মহারাজ মহাতাবচাঁদ দেশ বিদেশ থেকে নানান উৎকৃষ্ট মানের গোলাপ এনে বাগান সাজিয়েছিলেন। গোলাপের বাগান, নাম তাই গোলাপবাগ। পরিকল্পনা করে লাগিয়েছিলেন নানান বৃক্ষ। রাজা না থাক সেই গাছ এখনও ছায়া দিচ্ছে। ছিল ভেষজ উদ্যানও। সব মিলিয়ে রাজ্যের প্রথম বোটানিক্যাল গার্ডেন গড়ে উঠেছিল এই গোলাপবাগে। বর্ধমান রাজের অনুপ্রেরণা তাঁদের দান করা জমিতে গড়ে ওঠে শিবপুর বোটানিক্যাল গার্ডেন। সেখানের অনেক গাছ নিয়ে যাওয়া হয়েছিল এই গোলাপবাগ থেকে।

পরিখার মাঝে হাওয়ামহল। পূর্ণিমা সন্ধ্যায় রানীকে নিয়ে ভ্রমণে আসতেন রাজা। বিশাল বিশাল গাছ দিয়ে তৈরি করা হয়েছিল ভুলভুলাইয়া। রাজার উদ্যোগে তৈরি হল বিশাল চিড়িয়াখানা। জলে কুমীর, ডাঙায় বাঘ সিংহ হাতি গন্ডার হরিণ। পাখি ছিল হাজার রকমের। সেসবের বেশিরভাগ নিয়ে তৈরি হয় আলিপুর চিড়িয়াখানা। বাকিরা ঠাঁই পায় বর্ধমানের রমনাবাগান অভয়ারণ্যে।

এই গোলাপবাগের নিস্তব্ধতায় ধ্যান করতেন মহারাজ বিজয়চাঁদ মহাতাব। গোলাপবাগের সেই জায়গাকে বলা হয় বিজয় বাহার। সুন্দর সাজানো-গোছানো জায়গাটি। ভেতরে রয়েছে দুটো শিব মন্দির। আজও বাসিন্দারা ছুটে আসেন শান্তির খোঁজে। সবুজের বাহার বাড়িয়েছে জানা অজানা নানান ফুল। হাসনুহানা, কাঁঠালিচাঁপার সুঘ্রাণ মন মাতাল করে। চোখ টানে রাস্তার পাশের দেওয়াল। নানান পশুপাখির ছবিতে সেজে উঠেছে চারপাশ। সেসবের টানে বড়দের হাত ধরে টেনে আনছে শিশুরা।

রাতের বাহারি আলোয় এখন আরও সুন্দর,আরও মোহময় গোলাপবাগ। গোলাপবাগ মানেই ছায়াসুনীবিড় শান্তির নীড়। গোলাপবাগ মানেই প্রাণের আরাম।

Published by:Arka Deb
First published: