সদ্যজাতককে চুরি করে পাচারের অভিযোগ, কাঠগড়ায় বর্ধমানের একটি বেসরকারি নার্সিংহোম

সদ্যজাতককে চুরি করে পাচারের অভিযোগ, কাঠগড়ায় বর্ধমানের একটি বেসরকারি নার্সিংহোম

সদ্যজাতককে চুরি করে পাচারের অভিযোগ, কাঠগড়ায় বর্ধমানের একটি বেসরকারি নার্সিংহোম

  • Share this:

SARADINDU GHOSH

#বর্ধমান: ফের সদ্যজাতককে চুরি করে পাচারের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল বর্ধমানের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে ।

শহরের জিটি রোডের ধারে ভাঙাকুঠি এলাকার একটি বেসরকারি নাসিংহোম থেকে দশ হাজার টাকার বিনিময়ে শিশু কন্যাকে বিক্রির অভিযোগে নার্সিংহোমের এক টেকনিসিয়ানকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নার্সিংহোমের এক ডাক্তারের বিরুদ্ধেও ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

অভিযোগ, বিক্রি করা হয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়ার পানুহাটের এক নিঃসন্তান দম্পতিকে ৷ বেশ কয়েক হাজার টাকায় এক সদ্যোজাত শিশুকন্যাকে বিক্রি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে ৷

কাটোয়ার পানুহাটের দীঘির পাড়ের বাসিন্দা প্রদীপ বিশ্বাসের বিয়ের ১১ বছর পরও কোনও সন্তান হয়নি। হঠাৎ করে দম্পতির কোলে বাচ্চা দেখে সন্দেহ হয় স্থানীয় বাসিন্দাদের। তারা তাদের সন্দেহের কথা কাটোয়া থানায় জানালে পুলিশ তদন্ত শুরু করে ।

তদন্তে নেমে শিশুকন্যাটিকে উদ্ধার করে কাটোয়া থানার পুলিশ। ওই নিঃসন্তান দম্পতি পুলিশকে জানান, তারা শিশুকন্যাটিকে বর্ধমানের দ্য লাইফ লাইন নার্সিং হোম থেকে কিনেছেন দশ হাজার টাকার বিনিময়ে। গোটা ঘটনায় ওই দম্পতিকে সাহায্য করে বর্ধমান লাইফ লাইনের চিকিৎসক মোল্লা কাসেম আলি এবং টেকনিশিয়ান শৈবাল রায়।

গত ২৮ জুন বর্ধমানের লাইফ লাইন নার্সিং হোমের ডাক্তার ও টেকনিশিয়ানের সহায়তায় ওই বাচ্চা তারা কিনেছেন। ঘটনার তদন্তে নেমে টেকনিশিয়ান শৈবাল রায়কে বর্ধমান লাইফ লাইন নার্সিং হোম থেকে গ্রেপ্তার করে কাটোয়া থানার পুলিশ।

এই ঘটনার সঙ্গে আরও কারা জড়িত, কাদের কন্যা সন্তান চুরি করা হয়েছিল সে সব বিস্তারিত খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছে জেলা পুলিশ।

Published by:Akash Misra
First published: