'পদ্মফুল' হয়ে গেল 'জোড়া ফুল'! বিজেপির দেওয়াল লিখন মুছে 'খেলা হবে' স্লোগান ঘিরে তুমুল চাঞ্চল্য

বিজেপির দেওয়াল লিখন মুছে খেলা হবে স্লোগান ঘিরে তুমুল চাঞ্চল্য

বিজেপির দাবি, কয়েকমাস আগে থেকে এলাকার মানুষ এর থেকে সম্মতি নিয়ে তমলুক শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে দেওয়াল লিখনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিল তারা। কিন্তু রাতের অন্ধকারে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপির সমস্ত দেওয়াললিখন ও পদ্মফুল প্রতীক মুছে দিয়ে তৃণমূলের জোড়াফুল আঁকা হয়।

  • Share this:

#পূর্বমেদিনীপুর: ভোটের আগে দেওয়াল লিখনকে কেন্দ্র করে বিজেপি এবং তৃণমূল সমর্থকদের মধ্যে বচসা ও ধ্বস্তাধস্তি। দুপক্ষের মধ্যে পরিস্থিতি সামাল দিতে আসরে পুলিশ। ঘটনা তমলুক শহরের।

জানা গিয়েছে, বিজেপির দেওয়াল লিখন মুছে দেওয়ার অভিযোগকে ঘিরেই গন্ডগোলের সূত্রপাত। দেওয়াল লিখন মুছে দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও তৃণমূলের পাল্টা অভিযোগ, তাদের দখলে থাকা দেওয়ালেই বিজেপি জোর করে নিজেদের প্রতীক আঁকছিলো। তৃণমূলের অভিযোগ অবশ্য অস্বীকার করেছে বিজেপি।

গোটা ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ায় তমলুক শহরে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে খবর। বিজেপির অভিযোগ, দলীয় কর্মী এবং নেতৃত্বরা এদিন নতুন করে দেওয়াল লিখন করতে গেলে তাঁদের উপরে হামলা চালানো হয়। অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূলও। ঘটনাকে কেন্দ্র করে বচসা বাঁধলে এলাকায় পৌঁছয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। ঘটনাটি তমলুকের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের।

বিজেপির দাবি, কয়েকমাস আগে থেকে এলাকার মানুষ এর থেকে সম্মতি নিয়ে তমলুক শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে দেওয়াল লিখনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিল তারা। কিন্তু রাতের অন্ধকারে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপির সমস্ত দেওয়াললিখন ও পদ্মফুল প্রতীক মুছে দিয়ে তৃণমূলের জোড়াফুল আঁকা হয়। নতুন করে চুনকাম করে দেওয়ালে "খেলা হবে" স্লোগান লেখা হয়। দেওয়াল মালিকদের ভয়ও দেখানো হয় বলে বিজেপির অভিযোগ।

তমলুক শহর তৃণমূলের সভাপতি তথা ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল নেতারা এসব করেছেন বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি। আজ বিজেপি নেতৃত্ব ও কর্মীরা নতুন করে সেইসব দেওয়ালে লিখতে গেলে তৃণমূলীরা তাঁদের উপর চড়াও হয়। হামলাও চালানো হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় এলাকা উত্তপ্ত হয়ে উঠলে ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী পৌঁছায়। পুলিশের সামনেই বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালানোর চেষ্টা হয় বলে অভিযোগ। উত্তেজনা ঠেকাতে পুলিশের তরফ থেকে থানায় আলোচনার ব্যবস্থা করা হয়।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: