• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • নতুন করে ইট তৈরি বন্ধ করলেন, বীরভূমের ইট ব্যবসায়ীরা নিলেন বড় সিদ্ধান্ত

নতুন করে ইট তৈরি বন্ধ করলেন, বীরভূমের ইট ব্যবসায়ীরা নিলেন বড় সিদ্ধান্ত

নতুন করে ইট (Brick) তৈরি বন্ধ করলেন, বীরভূমের (Birbhum) ইট ব্যাবসায়ীরা।

নতুন করে ইট (Brick) তৈরি বন্ধ করলেন, বীরভূমের (Birbhum) ইট ব্যাবসায়ীরা।

নতুন করে ইট (Brick) তৈরি বন্ধ করলেন, বীরভূমের (Birbhum) ইট ব্যাবসায়ীরা।

  • Share this:

#বীরভূম: নতুন করে ইট (Brick) তৈরি বন্ধ করলেন, বীরভূমের (Birbhum) ইট ব্যাবসায়ীরা। রাজ্য সরকার সাহা্য্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েও,  কেন্দ্রীয় সরকারের জিএসটি সহ বিভিন্ন নিয়মের জন্যই এই সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকার সদয় হলেও কেন্দ্র সরকারের বিভিন্ন নীতির ফলে সমস্যায় বীরভূমে ইট শিল্পের সঙ্গে যুক্ত কারবারিরা। কয়লার দাম বৃদ্ধি,  জিএসটি বাড়ানোর ফলে প্রবল সমস্যার মধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

প্রতিবাদে বীরভূম (Birbhum) জেলার ইট (Brick)  ব্যবসায়ীরা অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য নতুন করে ইট ভাটায় ইট তৈরী বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিলেন। বীরভূম জেলার ইট ব্যবসায়ীরা সিউড়িতে সমবেত হয়ে কারবার বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করলেন। ইট তৈরীর প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বৃদ্ধি চাহিদা কম প্রভৃতি কারণে বর্তমানে বেহালদশা কারবারের বলে দাবি ব্যবসায়ীদের। যেখানে এক বছর আগে ECL কয়লা ৯০০০ টাকা টন প্রতি পাওয়া যেত সেটা বর্তমানে প্রায় ১৬ হাজার টাকাতে ঠেকেছে। ইট কারবারে জিএসটি ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১২% ঘোষণা করেছে কেন্দ্র সরকার।

আরও পড়ুন - Ind vs NZ: টসে ফের জয়, দেখে নিন ভারত ও নিউজিল্যান্ডের প্লেয়িং ইলেভেন

এছাড়াও কেন্দ্র সরকার সরকারি প্রকল্পের বাড়ির টাকা বরাদ্দ কেন্দ্র সরকার বাংলার জন্য কমিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ। তাছাড়া বালি ১০০ ঘনফুট বালি ২০০০ টাকাতে পাওয়া যেত সেটা দ্বিগুণ হয়ে বর্তমানে ৪০০০ টাকা।  ফলে একদিকে কাঁচামালের দাম বৃদ্ধি অন্যদিকে চাহিদা একেবারেই তলানীতে। সেই বর্তমান পরিস্থিতিতে ইটের কারবার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বীরভূম জেলার  ব্যবসায়ীরা।সভাপতি,  বীরভূম জেলা ইট ব্যাবসায়িদের সভাপতি সুবোধ ঘটক জানিয়েছেন আমরা এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি তার কারণ ইট ব্যবসায়ীদের পিঠ দেওয়ালে ঠেকে গেছে,  বর্তমানে ইটভাটা চালানো মুশকিল হয়ে পড়েছে।

আরও পড়ুন - Crore Rupees: রিকশাচালককে ১ কোটি টাকার সম্পত্তি শুধু শুধুই দিয়ে দিলেন বৃদ্ধা

আরেক ইট ব্যবসায়ী তারক দাস জানিয়েছেন  বর্তমানে ইট ভাটার কর্মীদের বেতন দেওয়াটাই চাপের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে,  লাভের মুখ দেখা যাচ্ছেনা। এখন ইট ব্যবসার বীরভূমে যা অবস্থা তাতে অনেক রাজমিস্ত্রির কাজ হারিয়ে চুপচাপ ঘরে বসে আছেন। আর হঠাৎ করে যদি এইভাবে ইটের প্রোডাকশন বন্ধ করে দেওয়া হয় ,  তাহলে ধীরে ধীরে যা ইট মার্কেটে আছে তা বাড়ি তৈরীর কাজে লেগে গেলে নতুন করে না পেলে বাড়ি তৈরি করতে গিয়ে অনেকেই সমস্যার সম্মুখীন হবে বলে ধারনা বীরভূমের বাসিন্দাদের।

Supratim Das

Published by:Debalina Datta
First published: