Home /News /south-bengal /
Bongaon: বৃদ্ধা মায়ের উপর অমানবিক অত্যাচার, ছেলে-বৌমার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ মেয়ের

Bongaon: বৃদ্ধা মায়ের উপর অমানবিক অত্যাচার, ছেলে-বৌমার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ মেয়ের

বৃদ্ধা মায়ের উপর অমানবিক অত্যাচারের অভিযোগ ছেলে-বৌমার বিরুদ্ধে, পুলিশে অভিযোগ জানালেন মেয়ে।

  • Share this:

    #বনগাঁ: বৃদ্ধা মায়ের উপর অমানবিক অত্যাচারের অভিযোগ ছেলে-বৌমার বিরুদ্ধে, পুলিশে অভিযোগ জানালেন মেয়ে।

    থানায় দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়েছে, ৬৫ বছরের বৃদ্ধা অসুস্থ মা ঘরে রয়েছেন, অথচ তাঁকে খেতে দেয় না ছেলে। এমনকী মায়ের অসুস্থতার খবর পর্যন্ত নেয় না ছেলে। অসুস্থ হয়ে শুয়ে থাকতে থাকতে গায়ে ঘা হয়েছে, তবুও হুঁশ নেই ছেলের। মায়ের বাড়ির পাশেই একতলা বাড়িতে স্ত্রী-ছেলে- মেয়ে নিয়ে সুখে দিন যাপন করছেন ছেলে, অথচ পাশের ঘরেই অবহেলায় একা পড়ে মা! এমনকী, মায়ের উপর অত্যাচার করার অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে।

    আরও পড়ুন: অবশেষে শনিবাসরীয় সন্ধ্যায় কলকাতায় মরশুমের প্রথম কালবৈশাখী ও স্বস্তির বৃষ্টি

    দাদা- বৌদির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বৃদ্ধার মেয়ে স্বপ্না দেবনাথ। ঘটনাটি ঘটেছে বনগাঁ থানার কুড়ির মাঠ এলাকায় ৷ স্বপ্না দেবীর অভিযোগ, সম্পত্তির ভাগ না দেওয়ায় বৃদ্ধা মাকে খেতে-পড়তে দিত না পেশায় গাড়ি চালক ছেলে রাম চন্দ্র নাথ। নির্জাতিতা বৃদ্ধার নাম পূর্ণিমা নাথ। বৃদ্ধার দুই মেয়ে বিবাহিতা।

    আরও পড়ুন: বচসার জের ! বেলঘড়িয়ায় অটোচালকের চোখে লঙ্কাগুঁড়ো ছিটিয়ে পালাল মহিলা যাত্রী

    দিন কয়েক আগে বৃদ্ধা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন, তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয়রা-ই। ছেলে কোনও দায়িত্বই নেন না! মেয়ে রত্না দেবনাথের অভিযোগ, মায়ের উপরে মানসিক অত্যাচার করে দাদা। সম্পত্তির জন্য মাকে মানসিকভাবে চাপ দেওয়া হয়। মাকে খেতে পর্যন্ত দেওয়া হয় না, মায়ের অসুস্থতার খবরও নেয় না । মাকে হাসপাতালে ফেলে রেখে আর খোঁজ নেয়নি মায়ের। মেয়ের আরও অভিযোগ, মায়ের চিকিৎসার জন্য মায়ের জমিই বিক্রির দাবি জানিয়েছে দাদা! যদিও বোনেদের সব অভিযোগ অস্বীকার করে রামনাথ জানিয়েছেন, 'ভিত্তিহীন অভিযোগ' । নিজের দায় এড়িয়ে বলেছেন, '' আমি মাকে খেতে দিতে চেয়েছিলাম, মা নিজে খেতে চান নি।''

    স্থানীয় কাউন্সিলর অমিতাভ দাস বলেন, '' বৃদ্ধার মেয়ে আমাকে দু'দিন আগে বিষয়টি জানিয়েছে । আমরা খতিয়ে দেখছি । মাকে না খেতে দেওয়ার অভিযোগ গুরুতর, এমনটা হওয়া উচিত নয় । আমরা বিষয়টি যত দ্রুত সম্ভব সমাধানের চেষ্টা করব।''

    Aniruddha Kirtania

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published:

    Tags: Bongaon

    পরবর্তী খবর