তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে অনশন, গঙ্গা জলে বিজেপি কর্মীদের শুদ্ধিকরণ হল বীরভূমে

সাঁইথিয়ার বনগ্রামে বিজেপি কর্মীদের তৃণমূলে যোগদান৷

সাঁইথিয়ার বনগ্রামের তৃণমূল (TMC) কার্যালয়ের সামনে এ দিন সকালেই জড়ো হন বেশ কিছু বিজেপি (BJP) কর্মী, সমর্থক৷ এঁদের মধ্যে অনেকেই ভোটের আগে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছিলেন৷

  • Share this:

তৃণমূলে ফিরে আসার জন্য মরিয়া৷ আর সেই জন্য রীতিমতো অনশনে বসে পড়লেন বিজেপি কর্মীরা৷ চার ঘণ্টা হত্যে দিয়ে বসে থাকার পর শেষ পর্যন্ত পুরনো দলে তাঁদের ফিরিয়ে নেওয়া হল ঠিকই, কিন্তু তার আগে রীতিমতো গায়ে গঙ্গাজল ছিঁটিয়ে বিজেপি কর্মীদের শুদ্ধিকরণ করা হল৷ এমনই দৃশ্যের সাক্ষী থাকল বীরভূমের সাঁইথিয়ার বনগ্রাম৷

সাঁইথিয়ার বনগ্রামের তৃণমূল কার্যালয়ের সামনে এ দিন সকালেই জড়ো হন বেশ কিছু বিজেপি কর্মী, সমর্থক৷ এঁদের মধ্যে অনেকেই ভোটের আগে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছিলেন৷ ভোট মিটতেই পুরনো দলে ফিরতে মরিয়া তাঁরা৷ তৃণমূল কার্যালয়ের সামনেই অনশনও শুরু করেন তাঁরা৷ ওই বিজেপি কর্মীরা দাবি করেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত তাঁদের তৃণমূলে ফিরিয়ে নেওয়া হবে, তাঁদের অনশন চলবে৷

প্রায় ঘণ্টা চারেক অপেক্ষার পর অবশেষে ঘটনাস্থলে আসেন বনগ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান এবং তৃণমূল নেতা তুষার মণ্ডল৷ সবশুনে বিজেপি কর্মীদের দলে ফেরাতে রাজি হন তিনি৷ কিন্তু শর্ত দেন, বিজেপি থেকে আসা কর্মীদের গায়ে গঙ্গা জল ছিঁটিয়ে তাঁদের শুদ্ধিকরণ করে নেওয়া হবে৷ সেই মতো গঙ্গাজল এনে ওই কর্মীদের গায়ে ছেঁটানোও হয়৷ তার পরেই বিজেপি কর্মীদের হাতে তৃণমূলের পতাকা তুলে দেওয়া হয়৷ প্রশ্ন উঠছে, বিজেপি করার জন্য কেন এ ভাবে গায়ে গঙ্গা জল ছিঁটাতে হবে? স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের পাল্টা জবাব, ভোটের আগে তৃণমূল কোথাও সভা করলেই সেখানে নিজেদের সভা করার আগে গঙ্গা জল ছিঁটিয়ে শুদ্ধ করে নিত বিজেপি৷

লাভপুরের বিধায়ক এবং বীরভূমের তৃণমূল সহ সভাপতি অভিজিৎ সিনহার যুক্তি, 'বিজেপি-র বহিরাগত নেতারা এখানে এসে আমাদের নামে কুৎসা, অপপ্রচার চালিয়েছেন৷ তাই হয়তো স্থানীয় নেতৃত্বের মনে হয়েছে শুদ্ধিকরণের প্রয়োজন আছে৷ গঙ্গা জলেই তো শুদ্ধিকরণ হয়৷ আর এটা হল মানসিকতার শুদ্ধিকরণ৷ অন্য কিছু নয়৷'

Supratim Das

Published by:Debamoy Ghosh
First published: