ডিম- ভাতের পাল্টা মাছ ভাত! বহিরাগত তকমা ঘোচাতে বাঙালির প্রিয় পদেই ভরসা বিজেপি-র

প্রতীকী ছবি৷

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়েই মাছ ভাত খাওয়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব৷

  • Share this:

#এগরা: তৃণমূলের সঙ্গে ডিম ভাতকে জড়িয়ে কম কটাক্ষ করে না বিরোধীরা৷ নির্বাচনের আগে সরকারি উদ্যোগে মায়ের হেঁশেল থেকে ৫ টাকায় ডিম, ভাত খাওয়ানোর উদ্যোগ শুরু হওয়ায় তার পিছনে ভোটের অঙ্কই দেখতে পাচ্ছেন নিন্দুকরা৷ যদিও পাঁচ টাকায় পেট ভরে ভাত, ডাল, সব্জির সঙ্গে ডিমের ঝোল পেয়ে বেজায় খুশি আমজনতা৷

এবার ডিম ভাতের পাল্টা কৌশল হিসেবে বাঙালির প্রিয় মাছ ভাতকেই হাতিয়ার করছে বিজেপি৷ পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়েই মাছ ভাত খাওয়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব৷ রবিবারই এগরায় এই কর্মসূচির সূচনা করা হয়৷ রবিবার এগরা-১ ব্লকের বোলকোশদা বুথে বিজেপি কর্মীরা সাধারণ মানুষকে নিয়ে পাত পেড়ে মাছ ও ভাত ডাল খেলেন। মাছে ভাতে রসনা তৃপ্তির মাঝেই চলল বিজেপি-র জনসংযোগ। জেলার প্রতিটি বুথেই মানুষকে এভাবে মাছ-ভাত খাওয়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে৷ শুধু মাছ ভাত নয়, মেনুতে ছিল ডাল, আলু ভাজা এবং পটল ভাজাও৷

সূত্রের খবর, বার বার বিজেপি-র শীর্ষ নেতাদের বহিরাগত বলে আক্রমণ করছেন তৃণমূল নেতারা৷ বিজেপি বাইরের দল বলেও বাঙালি আবেগকে নিজেদের দিকে টানার চেষ্টা করছে রাজ্যের শাসক দল৷ তৃণমূলের এই অভিযোগকে ভোঁতা করে দিতেই বিজেপি-র মাছ ভাত খাওয়ানোর কৌশল৷ যাতে বাঙালির প্রিয় পদ খাইয়েই বাঙালির মন জয় করা যায়৷

রবিবার এগরার এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা কণিষ্ক পণ্ডা৷ তিনি বলেন, 'আমরা মাছে ভাতে বাঙালি, আমরা বাংলাদেশি নই৷ আমাদের এই মাছে ভাতের মধ্যেই খেলা হবে৷'

বিজেপি-র এই কৌশলকে জবাব দিয়েছেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি এবং রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রও৷ তিনি বলেন, 'মানুষের খিদে আছে, স্বল্প মূল্যে কেউ খাবার পেলে তো ক্ষতি নেই৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুকরণ করে যদি কেউ করে, ক্ষতি কী? তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখে এরা যে শিখছে, সেটা স্বীকার করলে আরও ভাল হত৷'

Sujit Bhowmik
Published by:Debamoy Ghosh
First published: