গোষ্ঠীকোন্দলের জেরে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরানো হয়েছিল, সেই সন্দীপ নন্দীকেই প্রার্থী করল বিজেপি

গোষ্ঠীকোন্দলের জেরে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরানো হয়েছিল, সেই সন্দীপ নন্দীকেই প্রার্থী করল বিজেপি

সন্দীপ নন্দীকেই প্রার্থী করল বিজেপি

কয়েকদিন আগেই বিজেপির বর্ধমান সাংগঠনিক জেলার সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল সন্দীপ নন্দীকে। পুরনো দিনের কর্মীদের তিনি গুরুত্ব দিচ্ছেন না বলে অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন আদি বিজেপি কর্মীরা।

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রে দলের সদ্য প্রাক্তন জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দীকে প্রার্থী করল বিজেপি। গত লোকসভা ভোটের নিরিখে এই আসনে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে বিজেপি। জয়ের যথেষ্ট সম্ভাবনা তৈরি হওয়া এই আসনে দল কাকে প্রার্থী করে তা নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক কৌতূহল তৈরি হয়েছিল। চিকিৎসক থেকে শুরু করে হেভিওয়েট নেতা, তারকা প্রার্থীর নাম ঘোরাফেরা করছিল এই আসনের জন্য। শেষ পর্যন্ত দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করে আসা সন্দীপ নন্দীকেই প্রার্থী হিসেবে বেছে নিল বিজেপি নেতৃত্ব। গতবারও তিনি এই কেন্দ্রের প্রার্থী ছিলেন।

কয়েকদিন আগেই বিজেপির বর্ধমান সাংগঠনিক জেলার সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল সন্দীপ নন্দীকে। পুরনো দিনের কর্মীদের তিনি গুরুত্ব দিচ্ছেন না বলে অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন আদি বিজেপি কর্মীরা। দুই গোষ্ঠীর মধ্যে বিবাদের জেরে বর্ধমানে বিজেপি জেলা কার্যালয়ে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে। ব্যাপক ভাঙচুর চলে জেলা কার্যালয়ে। এর পরেই বেশ কয়েকজনকে সাসপেন্ড করার পাশাপাশি জেলা সভাপতির পদ থেকে সন্দীপ নন্দীকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেই সন্দীপ নন্দীকেই বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করেছে বিজেপি।

বিধানসভা নির্বাচনে ভালো ফল করতে রাজ্যের শস্য ভান্ডার হিসেবে পরিচিত পূর্ব বর্ধমান জেলাকে পাখির চোখ করেছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই এই জেলায় সফর করে গিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও এই জেলা সফরে আসতে পারেন বলে বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে। এই জেলার বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্র জিতে নিয়েছে বিজেপি। তৃণমূল কংগ্রেসের মমতাজ সংঘমিতাকে হারিয়ে এই লোকসভা আসনে জয়ী হয়েছিলেন সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া। সেই লোকসভা আসনের মধ্যেই পড়ে বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্র। গত বিধানসভা নির্বাচনে ৩৮ হাজারের কাছাকাছি ভোটে জিতেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু গত লোকসভা ভোটে সেই ব্যবধান দেড় হাজারের নীচে নেমে এসেছে। তাই এই আসন জয়ের ব্যাপারে খুবই আশাবাদী বিজেপি নেতৃত্ব।

বর্ধমান পৌরসভার পঁয়ত্রিশটি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এই বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রাক্তন কাউন্সিলর খোকন দাসকে প্রার্থী করেছে। এই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন নিহত প্রাক্তন বিধায়ক প্রদীপ তার মেয়ে পৃথা তা। এই আসনে বিজেপি কাকে প্রার্থী করে তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর চর্চা চলছিল। শেষ পর্যন্ত দীর্ঘদিন দলের সাংগঠনিক সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসা সন্দীপ নন্দীর ওপর আস্থা রেখেছে বিজেপি নেতৃত্ব। তিনি কতটা সাফল্য পান সেটাই এখন দেখার।

প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর পরই জনসংযোগ শুরু করে দিয়েছেন সন্দীপ নন্দী। গতকাল দলের জেলা কার্যালয়ে বাজনা বাজিয়ে আবির উড়িয়ে প্রার্থী হিসেবে সন্দীপ নন্দীকে বরণ করে নেন তাঁর অনুগামীরা। এরপর তিনি সন্ধ্যায় বর্ধমানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সর্বমঙ্গলা মন্দিরে পুজো দেন। শুক্রবারও পুজো প্রার্থনায় কাটালেন বর্ধমান দক্ষিণ কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী। এদিন সকালে তিনি কাঞ্চননগরে কঙ্কালেশ্বরী কালী মন্দিরে পুজো দেন। পুজো দেন খক্কর শাহের মাজারে। প্রার্থনা জানান গুরুদ্বারে। প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় সন্দীপ নন্দী বলেন, দল এরাজ্যে ক্ষমতায় আসতে চলেছে। বর্ধমানের বাসিন্দারা তার অংশীদার হবেন বলেই আমি মনে করি।

Saradindu Ghosh 

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: