'আমার সন্তান যেন...' কবিকে বেমালুম বদলে ফেললেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ! তুঙ্গে বিতর্ক...

'আমার সন্তান যেন...' কবিকে বেমালুম বদলে ফেললেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ! তুঙ্গে বিতর্ক...
বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ।

'আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে'-এই উক্তিটি এ বাংলার প্রতিটি বাবা-মায়ের মনের কথা। বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত এই বাক্যকে ঘিরেই দেখা দিল বিতর্ক পূর্ব বর্ধমান জেলার খণ্ডঘোষের বেড়ুগ্রামে।

  • Share this:

#খণ্ডঘোষ: 'আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে'-এই উক্তিটি এ বাংলার প্রতিটি বাবা-মায়ের মনের কথা। তাই এই কথার ব্যবহার পাওয়া যায় মাঝেমধ্যেই। বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত এই বাক্যকে ঘিরেই দেখা দিল বিতর্ক পূর্ব বর্ধমান জেলার খণ্ডঘোষের বেড়ুগ্রামে। দলের নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখছিলেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। তিনি এ রাজ্যের বেকার সমস্যার কথা তুলে ধরতে গিয়ে এই বাক্যের ব্যবহার করেন। এত দূর পর্যন্ত কোনও সমস্যা ছিল না কিন্তু গোল বাঁধলো সাংসদের বক্তব্যে। যখন তিনি বললেন, জীবনানন্দ দাশ বলেছিলেন আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে। সাংসদের মুখে একথা শুনেই খটকা লাগে অনেকের মনেই মুহূর্তেই তাঁরা বুঝে যান ভুল বলেছেন সাংসদ।

রায়গুণাকর ভারতচন্দ্রের অন্নদামঙ্গল কাব্যে অন্নপূর্ণাকে একথা বলেছিলেন ঈশ্বরী পাটনী। বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস সম্পর্কে কম-বেশি ওয়াকিবহাল সকলেই জানেন অন্নপূর্ণা ও ঈশ্বরী পাটনী কথা তাই আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে এই উদ্ধৃতি সাংসদ জীবনানন্দ দাশের বলে উল্লেখ করতেই সভায় উপস্থিত শ্রোতাদের অনেকের মধ্যেই গুঞ্জন শুরু হয়ে যায়। তাতে অবশ্য সাংসদ সৌমিত্র খাঁর বক্তব্যে কোনও প্রভাব পড়েনি।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে বিতর্ক। শিক্ষাবিদরা বলছেন, এ রাজ্যে নেতাদের বক্তব্যের মান যেমন কমেছে ঠিক তেমনই ভুলের সংখ্যাও বেড়ে চলেছে। বক্তব্যের মধ্যে কুরুচিকর কথা বার্তা এখন অনেক বেশি হচ্ছে। এক একটি সভায় কম বয়সী থেকে শুরু করে অনেক বেশি বয়সী সব ধরনের শ্রোতা থাকেন। থাকেন মহিলারাও। অথচ সেখানে অনেক নেতাকেই শালীনতা বজায় রেখে কথা বলার ব্যাপারে সচেতন থাকতে দেখা যায় না। অতীতে অনেক রাজনৈতিক নেতার ভাষাগত দক্ষতা, শালীনতাবোধ, বাক্যচয়ণ অনুকরণ করার মতো ছিল। এখন সেই ধরনের বক্তার খুবই অভাব। তারপর যখন তখন তারা এক মনীষীর বক্তব্য অন্যের নামে চালিয়ে দিয়ে নিজেদের হাসির খোরাক করে তুলছেন।


পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাস বলেন, স্কুলের বইয়ে আমরা রায়গুণাকর ভারতচন্দ্রের অন্নপূর্ণা ও ঈশ্বরী পাটনী কবিতা পড়েছি। তাই বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র বাবুর শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে সন্দেহ জাগছে। তাঁর যে স্কুল শিক্ষাটুকু ঠিকঠাকভাবে হয়নি তা তাঁর এই মন্তব্যেই ধরা পড়ছে। বিজেপি বাংলার সংস্কৃতি, বাংলার মনীষীদের বিষয়ে অবগত নয়। তাই তারা অনায়াসে রবীন্দ্রনাথ শান্তিনিকেতনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বলে দিতে পারেন। সেই দলের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে এই অবিস্মরণীয় বাক্যের লেখক হিসেবে জীবনানন্দের নাম উল্লেখ করবেন তাতে অবাক হবার কি আছে। বাংলার মানুষ সবই দেখছেন যত দিন যাচ্ছে বিজেপি দল ও তাদের নেতাদের রুচি, সংস্কৃতি শিক্ষাদীক্ষা ব্যাপারে ততই ধারণা পরিষ্কার হচ্ছে রাজ্যবাসীর।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: