• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Howrah: হাওড়া পুরসভা থেকে ফের আলাদা হচ্ছে বালি! সিদ্ধান্ত ঘিরে শুরু তরজা

Howrah: হাওড়া পুরসভা থেকে ফের আলাদা হচ্ছে বালি! সিদ্ধান্ত ঘিরে শুরু তরজা

হাওড়ায় পুরভোট ঘিরে বিতর্ক৷

হাওড়ায় পুরভোট ঘিরে বিতর্ক৷

২০১৫ সালে বালি পুরসভাকে হাওড়া পুরসভার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা হয় | সেখানে বালির ৩৫টি ওয়ার্ড ভেঙে ১৬ ওয়ার্ডে পরিবর্তন করে ভোট হয়৷ সেক্ষত্রে হাওড়া পুরসভার আসন সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৬৬ | (Howrah)৷

  • Share this:

#হাওড়া: হাওড়া পুরসভার ভোট (Howrah Municipal Election) নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু রাজনৈতিক চর্চা | কেউ হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন ভোট না হওয়ার আবার কেউ চাইছেন নিয়ম মেনেই হোক নির্বাচন৷ ২০১৩  সালে শেষবার ভোট হয়েছিল হাওড়া পুরসভায়৷ সেই ভোটে জয়ী হয় তৃণমূল| ৫০ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৪৩ আসনে জয়ী হয় শাসক দল|

পরবর্তীকালে ২০১৫ সালে বালি পুরসভাকে হাওড়া (Howrah) পুরসভার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা হয় | সেখানে বালির ৩৫টি ওয়ার্ড  ভেঙে ১৬ ওয়ার্ডে পরিবর্তন করে ভোট হয়৷ সেক্ষত্রে হাওড়া পুরসভার আসন সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৬৬ |

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই রাজ্য সরকার ঘোষণা করে বালি পুরসভাকে হাওড়া পুরনিগম থেকে আলাদা করে দেওয়া হবে৷ রাজ্য সরকার কলকাতা ও হাওড়া পুরসভার ভোট করতে চেয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে আবেদন জানায়, কমিশন রাজ্যের আবেদনে সম্মতি জানিয়ে এই বছরের ১৯ ডিসেম্বর ভোট কলকাতা ও হাওড়ার ভোট করার জন্য প্রস্তুতিও শুরু করে | তবে হাওড়া পুরসভার মাত্র ৫০ টি ওয়ার্ডে ভোট করতে চায় নির্বাচন কমিশন ৷ আর রাজ্য সরকার ও কমিশনের এই সিদ্ধান্ত জেনেই আপত্তি জানাতে শুরু করেছে বিরোধীরা৷

আরও পড়ুন: শ্রাবন্তী ইস্যুতে মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ, সুর মেলালেন সুকান্তের সুরে! যা বললেন...

বিজেপি-র তরফে কলকাতা এবং হাওড়ায় আলাদা করে ভোট করানো নিয়ে মামলা করা হয়েছে৷ পাশাপাশি বালিকে হাওড়া থেকে আলাদা করার সিদ্ধান্তেরও প্রতিবাদ করেছেন বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ৷ তাঁর অভিযোগ রাজনৈতিক অভিসন্ধি নিয়েই বালিকে হাওড়া পুরসভার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল৷ একই অভিসন্ধি নিয়ে এবার বালিকে আলাদা করা হচ্ছে৷

ইতিমধ্যেই বিজেপি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে৷ নিয়ম মেনে ভোট না হলে বামেরাও আদালতের যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে৷ হাওড়ার সিপি আইএমের জেলা সম্পাদকের দাবি, বালি পুরসভাকে হাওড়ার সঙ্গে  সংযুক্ত করার সিদ্ধান্তই ছিল ভুল৷ আবার বিধানসভায় বিল পাশ না করিয়ে কীভাবে বালিকে হাওড়া পুরসভা থেকে আলাদা করা হচ্ছে, সেই প্রশ্নও তুলেছে সিপিএম৷ তবে প্রশাসন চাইলে তাঁরা সবরকম সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়েছেন হাওড়ার সিপিএম জেলা সম্পাদক৷ একই সঙ্গে উলুবেড়িয়া পুরসভাতেও ভোটের দাবি জানিয়েছেন তিনি৷

আরও পড়ুন: দুশোর লক্ষ্যে দেড়শো কোটি! বাংলার ভোটে কত খরচ করেছিল বিজেপি, সামনে এল তথ্য

 বিরোধী রাজনৈতিক দলের প্রশ্ন জোর করেই ২০১৫ সালে বালিকে হাওড়ার সাথে অন্তর্ভুক্ত করা হয় | আবার জোর করেই বালিকে আলাদা করা হয়েছে | সেক্ষত্রে প্রশ্ন উঠছে ২০১৯ সালে রাজ্য নির্বাচন কমিশন সংরক্ষিত আসন ও ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাসের একটি নোটিফিকেশন জারি করে৷ তাতে ৬৬ টি ওয়ার্ড নিয়ে সেই নোটিস দেওয়া হয়েছিল | বিরোধীদের প্রশ্ন, যদি ৫০টি ওয়ার্ড নিয়ে ভোট করতে হয় তাহলে ওই বিজ্ঞপ্তি জারি করার সময় তা জানানো হল না কেন? নতুন নোটিস জারি করে নির্বাচন করতে হলে যে সময় লাগে সেই সময় এখন নেই | ফলে হাওড়া পুর ভোটার ভবিষৎ নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন থেকেই যাচ্ছে৷ তবে বালি পুরসভাকে আলাদা করে দেওয়ায় খুশি বালির বাসিন্দারা৷ জেলার তৃণমুল সভাপতি কল্যাণ ঘোষ বলেন,  বিরোধীরাই ভোট চাইছে আবার তারাই আদালতে গিয়ে ভোট বন্ধ করছে | তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষেরও দাবি, বালির উন্নয়নেই সম্পূর্ণ প্রশাসনিক কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: