Home /News /south-bengal /
East Burdwan || মিষ্টির জন্মদিনে এলাহি আয়োজন, কাটা হল কেক, কিন্তু আসলে কে এই মিষ্টি? শুনলে চমকে যাবেন

East Burdwan || মিষ্টির জন্মদিনে এলাহি আয়োজন, কাটা হল কেক, কিন্তু আসলে কে এই মিষ্টি? শুনলে চমকে যাবেন

East Burdwan || এক বছর  আগে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে  শান্তিময়ী বন্দ্যোপাধ্যায় ও পার্থসারথি বন্দ্যোপাধ্যায় রাস্তার পাশে ঝোপের মধ্যে  রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন একটি টিয়া শাবককে। তাকে উদ্ধার করে পরম স্নেহে সেবা  শুরু করেন তাঁরা। পরে  আদুরে নাম রাখেন 'মিষ্টি'। এইভাবেই 'মিষ্টি' হয়ে ওঠে পরিবারের একজন সদস্য।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    পূর্ব বর্ধমান মিষ্টির জন্মদিন। বেলুন দিয়ে সাজানো চারপাশ। কাটা হল কেক। মাছ-ভাত-দই-মিষ্টির এলাহি আয়োজন। কব্জি ডুবিয়ে খেলেন আত্মীয় পরিজনরা। মিষ্টি মুখে তাদের সঙ্গ দিল মিষ্টি। সকলের মাঝে খাওয়া হলো মিষ্টিরও। বাড়ির আদরের মেয়ের প্রথম জন্মদিন বলে কথা। তাই আয়োজনের কোনও খামতি ছিল না। লাল ঠোঁট সবুজ রঙের এই মিষ্টি আসলে বাড়ির পোষ্য টিয়া।

    আরও পড়ুন:ধবধবে সাদা, তুলতুলে নরম! স্পঞ্জ রসগোল্লা তৈরি করুন ঘরেই! সহজ এই রেসিপি ট্রাই করুন আজই

    রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সন্তান স্নেহে লালনপালন। বছর ঘুরতেই সন্তানসম 'মিষ্টি'-র জন্মদিনে মাতোয়ারা পূর্ব বর্ধমানের সোনাপলাশির বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবার। আত্মীয় স্বজনদের জন্য এলাহি ভুরিভোজের আয়োজন। এই উদ্যোগকে কুর্নিশ জানাচ্ছেন পক্ষীপ্রেমীরা।

    এক বছর  আগে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে  শান্তিময়ী বন্দ্যোপাধ্যায় ও পার্থসারথি বন্দ্যোপাধ্যায় রাস্তার পাশে ঝোপের মধ্যে  রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন একটি টিয়া শাবককে। তাকে উদ্ধার করে পরম স্নেহে সেবা  শুরু করেন তাঁরা। পরে  আদুরে নাম রাখেন 'মিষ্টি'। এইভাবেই 'মিষ্টি' হয়ে ওঠে পরিবারের একজন সদস্য। তাকে শান্তিময়ী বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের মেয়ে বলেই পরিচয় দিতে বেশি ভালবাসেন। সেই দিনের ঘটনার বছর ঘুরতেই 'মিষ্টি'র জন্মদিন পালন হল ধুমধাম করে।

    সোনাপলাশী গ্রামের বাসিন্দা পার্থসারথি বন্দ্যোপাধ্যায় পেশায় পুরোহিত। প্রতিদিনই সকালে স্ত্রী শান্তিময়ী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে প্রাতঃভ্রমণে বের হন। ঠিক এক বছর আগে এই দিনটিতেই প্রাতঃভ্রমণে বেড়িয়ে রাস্তার পাশের ঝোপ থেকে অস্বাভাবিক আওয়াজ পেয়ে একটি টিয়া পাখির বাচ্চাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন তাঁরা। সেবা পেয়ে বন্দ্যোপাধ্যায় বাড়িতেই থেকে যায় টিয়া। তার নাম দেওয়া হয় মিষ্টি। বাড়ির মেয়ের মতোই তাকে লালন পালন করেন শান্তিময়ীদেবীরা। খাঁচায় বন্দি করার কথাও কখনও ভাবেননি শান্তিময়ীদেবীরা। খোলা আকাশেই বিচরণ করে মিষ্টি। পার্থসারথিবাবু জানিয়েছেন, তাঁদের পরিবারে ছেলেমেয়েদের জন্মদিন পালিত না হওয়ার রেওয়াজ রয়েছে প্রায় ৫০ বছরের। এবারই প্রথম মিষ্টির জন্মদিন পালন করে সেই ইতিহাসের ভাঙন ধরল। কাটা হয় কেক। প্রায় ৫০ জন নিমন্ত্রিতদের জন্য ছিল ব্যাপক আয়োজন- ভাত, ডাল, পোস্ত, পটল চিংড়ি, চাটনি, পাঁপড়, পায়েস, দই এবং মিষ্টি। আর মিষ্টির প্রিয় ছোলা তো ছিলই৷ অতিথিদের সঙ্গে বসে ভুরিভোজে অংশও নেয় 'মিষ্টি'ও।

     Saradindu Ghosh শরদিন্দু ঘোষ 
    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: East Burdwan

    পরবর্তী খবর