শতরঞ্জি পেতে মাটিতে বসলেন বীরভূমে জেলা শাসক সহ সব আধিকারিকরা, শুনলেন সাধারণ মানুষের সমস্যা

শতরঞ্জি পেতে মাটিতে বসলেন বীরভূমে জেলা শাসক সহ সব আধিকারিকরা, শুনলেন সাধারণ মানুষের সমস্যা

সমস্ত আধিকারিকরা টেবিল-চেয়ার ছাড়াই জনশুনানি মঞ্চের মাটিতে বসলেন শতরঞ্জি পেতে

  • Share this:
#বীরভূম: বীরভূমের দুবরাজপুরে সরকারিভাবে হলো জনশুনানি। আর সেই গণশুনানিতে বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা সহ উপস্থিত সমস্ত আধিকারিকরা টেবিল-চেয়ার ছাড়াই জনশুনানি মঞ্চের মাটিতে বসলেন শতরঞ্জি পেতে। মাটিতে বসলেন অন্যান্য উপস্থিত সাধারন মানুষের সঙ্গে তাদের সমস্যার কথা শোনারজন্য। জনশুনানিতে উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলা শাসক মৌমিতা গোদারা,  বীরভূম জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ সহ অন্যান্য প্রশাসনিক আধিকারিকরা। বীরভূমের দুবরাজপুর শহর এলাকা বড় হওয়ার জন্য সেখানে দুবরাজপুর রবীন্দ্র সদন ও দুবরাজপুর পৌরসভার অনুষ্ঠান হলে এই জনশুনানি হয়। এই শুনানিতে দুবরাজপুরের বিভিন্ন সমস্যার কথা উঠে এলো যার মধ্যে প্রধান রয়েছে দুবরাজপুরের শহরের ভেতর দিয়ে যাওয়া 14 নম্বর জাতীয় সড়কের যানজট,   এছাড়াও দুবরাজপুর গ্রামীণ হাসপাতালে বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন দুবরাজপুর শহরের বাসিন্দারা। রেশন ডিলারদের বিভিন্ন দুর্নীতি সম্পর্কে অভিযোগ জানান জেলা শাসকের কাছে,  খুব শিগগিরই সমস্ত ঘটনার ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন জেলা শাসক। বীরভূম জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ জানিয়েছেন কিছু কিছু সিদ্ধান্ত জনশুনানির মঞ্চ থেকেই নেওয়া হয়েছে যার মধ্যে রয়েছে পানীয় জলের সমস্যা সহ স্বাস্থ্য সাথীর কার্ডের সমস্যা। এই ধরনের সমস্যাগুলোতে আধিকারিকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সঙ্গে সঙ্গে সমস্যা মিটিয়ে দেওয়ার। তবে কিছু কিছু সমস্যার কথা যেগুলো নোট করে নেওয়া হয়েছে বীরভূমের সিউড়িতে জেলাশাসকের দপ্তরে ও জেলা পরিষদে আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তবে তা খুবই শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। বীরভূম জেলা প্রশাসন ও বীরভূম জেলা পরিষদের সমস্ত আধিকারিকদের জেলার বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে সাধারন মানুষের সমস্যার কথা শোনা হচ্ছে বেশ কয়েক মাস ধরেই। এই জনশুনানি শুরু হয়েছে বীরভূম জেলায় এক একটি এলাকায় যার ফলে অনেক সমস্যার সমাধান হয়ে যাচ্ছে জনসভার মঞ্চ থেকেই। কারন গোটা জেলা শাসকরের দপ্তর ও জেলা পরিষদকে হাতের কাছে পাচ্ছেন জেলার সাধারন মানুষরা।
Supratim Das
First published: February 24, 2020, 11:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर