কোথাও সম্প্রীতি, কোথাও অনাথ শিশুদের আত্মীয়তায় বাংলার ভাইফোঁটা

কোথাও সম্প্রীতি, কোথাও অনাথ শিশুদের আত্মীয়তায় বাংলার ভাইফোঁটা
ভাইফোঁটা

ধর্ম নয়। আত্মীয়তা বড়। সম্পর্কের উষ্ণতা মুছে দিতে পারে হানাহানি-হিংসা। ভাইফোঁটায় সৌভাতৃত্বের বার্তা দিল দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার বাসন্তী।

  • Share this:

#বসিরহাট: ভাইফোঁটা। ভাই-বোনের স্নেহ-আদরে দিনটা জমাটি। ভাইফোঁটা কখনও সম্প্রীতির নজির গড়ে দিয়ে যায়। ভাইফোঁটা কখনও অনাথ শিশুদের দিয়ে যায় আত্মীয়তার উষ্ণতা।

ধর্ম নয়। আত্মীয়তা বড়। সম্পর্কের উষ্ণতা মুছে দিতে পারে হানাহানি-হিংসা। ভাইফোঁটায় সৌভাতৃত্বের বার্তা দিল দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার বাসন্তী। বিধায়ক জয়ন্ত নস্করের উদ্যোগে গণ ভাই ফোঁটার আয়োজন করা হয়েছিল। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে দশ হাজার জনকে ভাইফোঁটা দেন মহিলারা। চুনাখালি পঞ্চায়েতের বগুখালিতে ছিল সাজ সাজ রব। মৌলবী, হাজি সাহেব, পুরোহিত, ধর্মগুরুরা মিলে জমজমাট ছিল ভাইফোঁটার উৎসব।

বসিরহাট থানার মহিলা কনস্টেবলরা ফোঁটা দিলেন এলাকার হিন্দু-মুসলিম ভাইদের। বসিরহাট থানা থেকেই ভাইদের হাতে দেওয়া হয় উপহার। সিউড়িতেও একই ছবি। হোমের চৌত্রিশজন শিশুকে ভাই ফোঁটা দেন সিউড়ি থানার মহিলা পুলিশকর্মীরা।

রায়গঞ্জ পুরসভার উদ্যোগে দেবীনগরে শিশু সদনে পালন করা হয় ভাইফোঁটা। শিশুদের জন্য পায়েস তৈরি করেছিল এলাকার দিদি-বোেনরা।

প্রতিবছরের মত এবছরও কোন্নগর নবগ্রাম সত্যভারতীর হোমে গিয়ে আবাসিকদের থেকে ভাইফোঁটা নেন উত্তরপাড়ার বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল। আবাসিককে উপহার দেন শাড়ি ও মিষ্টি।

মেদিনীপুরে পুলিশ আধিকারিক ও কর্মীদের ফোঁটা দেন পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর মৌ রায়। রাস্তায় কর্মরত ট্রাফিক পুলিশদের ফোঁটা দিয়ে মিষ্টিমুখ করান তিনি।

First published: October 30, 2019, 2:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर