Home /News /south-bengal /
Berhampore Murder Update : ১৫ দিন ধরে বহরমপুরে মেস ভাড়া করে ছিল সুশান্ত! চাঞ্চল্যকর তথ্য বহরমপুর হত্যাকাণ্ডে

Berhampore Murder Update : ১৫ দিন ধরে বহরমপুরে মেস ভাড়া করে ছিল সুশান্ত! চাঞ্চল্যকর তথ্য বহরমপুর হত্যাকাণ্ডে

১৫ দিন ধরে বহরমপুরে মেস ভাড়া করে ছিল সুশান্ত!

১৫ দিন ধরে বহরমপুরে মেস ভাড়া করে ছিল সুশান্ত!

Berhampore Murder Update : চাকরির পরীক্ষার কোচিং নেওয়ার জন্য বহরমপুরে থাকবে বলে মেস মালিককে জানিয়েছিল সে।

  • Share this:

#বহরমপুর: যতই দিন যাচ্ছে বহরমপুরে কলেজ যাত্রী খুনের ঘটনায় উঠে আসছে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে গত ১৮ এপ্রিল বহরমপুর আসে সুশান্ত। বহরমপুরের গোরাবাজারে একটি মেস বাড়ি ভাড়া নেয়। চাকরির পরীক্ষার কোচিং নেওয়ার জন্য বহরমপুরে থাকবে বলে মেস মালিককে জানিয়েছিল সে। পরিচয়পত্র হিসেবে আধার কার্ডের জেরক্স জমা দিয়েই মেস ভাড়া নিয়েছিল।

তবে ২৯ এপ্রিল বাড়ি ফিরে যায় সে। কিন্তু একদিন পরেই আবার মেসে ফিরে আসে। তারপরেই ২ মে, সোমবার ঘটে খুনের ঘটনা। এই ১৫ দিন ওই মেসে থাকলেও সুশান্তর মধ্যে কোনও অসংগতি দেখতে পাননি বলেই জানালেন মেস মালিক সুচিত্রা সাহা। তিনি বলেন, "আর পাঁচটা সাধারণ ছাত্রের মতোই আমরা মেস ভাড়া দিয়েছিলাম। ছেলেটির কথাবার্তা, আচরণ স্বাভাবিকই ছিল। চাকরির কোচিং নেবে বলে তিনমাসের জন্য ভাড়া নেবে বলেছিল। তবে মেসে কোনও জিনিসপত্রই সুশান্ত রেখে যায়নি।"

তবে কলেজ ছাত্রীকে খুনের ব্যাপারে জঙ্গিপুর কলেজের যে তৃতীয় ছাত্রের নাম উঠে এসেছে সেই ছাত্রকেও বহরমপুর থানার পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে। তৃতীয় বর্ষের ওই ছাত্র জঙ্গিপুর কলেজে জিওলজি স্নাতকে পড়ে। কিন্তু বহরমপুরের এক অধ্যাপকের কাছে তারা একসঙ্গে প্রাইভেট পড়তেন। সেখান থেকেই তাদের বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছে বলে ওই ছাত্রের দাবি।

আরও পড়ুন- খাওয়া বন্ধ করেছে সুশান্ত! পুলিশি জেরায় কোনও উত্তর দিচ্ছে না বহরমপুর হত্যাকাণ্ডের অভিযুক্ত

খুনের দিন টিউশন না থাকায় বন্ধুদের সঙ্গে মোহন মলে সিনেমা দেখতে যাওয়ার জন্য মেস থেকে দুপুর তিনটে নাগাদ বেরিয়ে যান ছাত্রী। তাদের মধ্যে এই ছাত্রও ছিলেন। ওই ছাত্র বলেন, "আমরা ভাল বন্ধু ছিলাম। একসঙ্গে সিনেমাও দেখতে গিয়েছিলাম, সেদিন প্রাইভেট টিউশন ছিল না তাই। তারপরেই আমি বাড়ি ফিরে জানতে পারি এই ঘটনার কথা। পুলিশ আমাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে, আমি বন্ধুত্বের কথাই জানিয়েছি।"

যে শিক্ষতের কাছে ছাত্রী প্রাইভেট টিউশন পড়তেন, সেই শিক্ষক শুভাশিস মণ্ডল বলেন, "সুতপা নিয়মিত টিউশনে পড়তে আসত, পরীক্ষাও দিত। পড়াশোনায় বেশ মনোযোগী ছিল। শেষ রবিবারেও পড়তে এসেছিল ও। এইভাবে নৃশংস মৃত্যু হবে তা মেনে নিতে পারছি না।"

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:

Tags: Berhampore

পরবর্তী খবর