• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ট্রেন চলাচল শুরুর আগে বর্ধমান রেল স্টেশন পরিদর্শন করলেন জেলা পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকরা

ট্রেন চলাচল শুরুর আগে বর্ধমান রেল স্টেশন পরিদর্শন করলেন জেলা পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকরা

স্টেশন চত্বরে ভিড় এড়াতে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। রেল স্টেশনের ভেতরে নজরদারি চালাবে রেল পুলিশ এবং আরপিএফ। সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্মীরা বাইরের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হবে।

স্টেশন চত্বরে ভিড় এড়াতে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। রেল স্টেশনের ভেতরে নজরদারি চালাবে রেল পুলিশ এবং আরপিএফ। সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্মীরা বাইরের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হবে।

স্টেশন চত্বরে ভিড় এড়াতে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। রেল স্টেশনের ভেতরে নজরদারি চালাবে রেল পুলিশ এবং আরপিএফ। সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্মীরা বাইরের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হবে।

  • Share this:

#বর্ধমান: আগামিকাল থেকে শুরু হচ্ছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। করোনার সংক্রমণ রুখতে প্রায় সাড়ে সাত মাস লোকাল ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। আগামিকাল থেকে ফের ট্রেন চলাচল শুরু করতে যাবতীয় প্রস্তুতি নিচ্ছে রেল। সেই সঙ্গে করোনার সংক্রমণ রুখতে তৎপরতা বাড়ছে জেলা প্রশাসন। মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক মহম্মদ এনাউর রহমান,জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, জেলা পুলিশ প্রশাসনের অন্যান্য আধিকারিকদের নিয়ে বর্ধমান রেল স্টেশন পরিদর্শন করেন। সেই পরিদর্শনে উপস্থিত ছিলেন জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রণব কুমার রায়ও। স্টেশন চত্বরে স্বাস্থ্যবিধি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি যাত্রীদের ঢোকা বেরোনোর পথ, আইসোলেশন রুম সহ খুঁটিনাটি সব কিছু ব্যাপারে খোঁজখবর নেন তাঁরা। বর্ধমান রেল স্টেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রেলের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন তাঁরা।

পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক মহম্মদ এনায়ুর রহমান বলেন, ট্রেন চলাচল শুরু হলে তা থেকে যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসন সতর্ক থাকছে। প্রত্যেক যাত্রীর থার্মাল স্ক্রিনিং করা হবে। সেজন্য প্রতিটি স্টেশনে আইসোলেশন রুম থাকছে। প্রত্যেক স্টেশনে অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হচ্ছে।

জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, এদিন প্রত্যেকটি স্টেশনে যৌথ পরিদর্শন চলছে। অন্যান্য স্টেশনগুলিতেও মহকুমা শাসক, বিডিও, সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ অফিসাররা স্বাস্থ্য দপ্তরে আধিকারিকদের নিয়ে পরিদর্শন করছেন। স্টেশন চত্বরে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। মাস্ক ছাড়া কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। এ ব্যাপারে নজরদারি চালাবেন পুলিশকর্মীরা।

স্টেশন চত্বরে ভিড় এড়াতে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। রেল স্টেশনের ভেতরে নজরদারি চালাবে রেল পুলিশ এবং আরপিএফ। সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্মীরা বাইরের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হবে। রেল স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম বা ফুট ওভার ব্রিজে অহেতুক যাত্রীদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেওয়া হবে না। সেই সঙ্গে বারে বারে যাত্রীদের ব্যবহৃত জায়গা স্যানিটাইজ করার ব্যবস্থা করেছে রেল। টিকিট কাউন্টার থেকে শুরু করে পানীয় জলের জায়গা, শৌচাগার বারে বারে পরিচ্ছন্ন রাখা হবে।

Published by:Pooja Basu
First published: