• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • 'হৃদ মাঝারে কে?' ধোঁয়াশা বজায় রাখলেন বাসুদেব বাউল

'হৃদ মাঝারে কে?' ধোঁয়াশা বজায় রাখলেন বাসুদেব বাউল

বাসুদেব দাস বাউল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে শুনিয়েছিলেন 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব যেতে দেব না।' আর ঠিক তার ৯ দিন কাটতে না কাটতেই দিদির জন্য তিনি সুর ধরলেন, 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব দিদি, যেতে দেব না।'

বাসুদেব দাস বাউল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে শুনিয়েছিলেন 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব যেতে দেব না।' আর ঠিক তার ৯ দিন কাটতে না কাটতেই দিদির জন্য তিনি সুর ধরলেন, 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব দিদি, যেতে দেব না।'

বাসুদেব দাস বাউল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে শুনিয়েছিলেন 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব যেতে দেব না।' আর ঠিক তার ৯ দিন কাটতে না কাটতেই দিদির জন্য তিনি সুর ধরলেন, 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব দিদি, যেতে দেব না।'

  • Share this:

 #বোলপুর: "হৃদ মাঝারে রাখব, ছেড়ে দেব না" একটাই গান। শুনলেন দু'জনেই। একজন শুনেছিলেন ঘরে বসে মধ্যাহ্ন ভোজন করে। একজন মঞ্চে শুনলেন। তবে হৃদ মাঝারে কে থাকবেন? খোলসা করলেন না বোলপুরের বাসুদেব বাউল। শুধু বললেন, "আমি কোনও পার্টি বা দল বুঝি না। আমি ভাবের ঘরের মানুষ। আমি সাধনা করে খাই।" তবে তাকে ঘিরে থাকা মানুষ অবশ্য প্রশ্ন ছুঁড়েই গেলেন হৃদ মাঝারে কে?

নয় দিন আগেই এই বোলপুরে, ছবিটা ছিল অমিত শাহ চেয়ারে বসে, আর তাঁকে গান শোনাচ্ছেন বাসুদেব বাউল। যে বাসুদেব বাউলের বাড়িতে পাত পেড়ে নিরামিষ খেয়েছিলেন অমিত শাহ। যদিও সেই খাবার নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি! আর এই ঘটনার ৯ দিন পরে সেই বাসুদেব বাউল মমতার পাশে হাঁটলেন বোলপুরের পদযাত্রায়।

বাসুদেব দাস বাউল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে শুনিয়েছিলেন 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব যেতে দেব না।' আর ঠিক তার ৯ দিন কাটতে না কাটতেই দিদির জন্য তিনি সুর ধরলেন, 'তোমায় হৃদমাঝারে রাখব দিদি, যেতে দেব না।' প্রেক্ষিত আলাদা। স্থান আলাদা। তবে গানের সুর-ভাষা এক। অনুব্রত মন্ডল আগেই জানিয়েছিলেন, অমিত শাহ যাঁর বাড়িতে খেয়েছেন , সেই বাউলও মমতার সভায় থাকবেন। এরপরই দেখা যায়,  গত কয়েক দিন ধরে বাসুদেব দাস বাউলকে নিয়ে তৃণমূল বনাম বিজেপির দ্বন্দ্ব বোলপুর জুড়ে৷ এরপর এদিন মমতার পদযাত্রায় তাঁর পাশেই দেখা গেল বাসুদেব দাস বাউলকে। দেখা যায় শতাব্দী রায়, ইন্দ্রনীল সেন সহ অনেককেই। তবে সব মিলিয়ে এদিন, বাসুদেব দাস বাউলকে নিয়ে কথা রাখলেন অনুব্রত। যেমনটা তিনি বলেছিলেন, তেমন ভাবেই দিদির পাশে এদিন বাসুদেব দাস বাউলকে দাঁড়িয়ে যেতে দেখা যায়!

এদিন শিষ্যা বর্ষাকে নিয়েই মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পাশে হাঁটেন বাসুদেব বাবু। একতারা হাতে সুর তুলতে তুলতেই তিনি পৌঁছে যান সভা মঞ্চে। বাকি বাউলরা মঞ্চের সামনে নীচে থাকলেও বাসুদেব বাবুর জায়গা হয়েছিল মঞ্চের ওপরে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী নিজের গলা থেকে তার উত্তরীয় পরিয়ে দেন বাসুদেব বাউলকে। এদিন অবশ্য অমিত শাহের বাসুদেব বাউলের বাড়িতে খাওয়া নিয়ে খোঁচা দিতে ছাড়েননি মমতা বন্দোপাধ্যায়। তবে দিনের শেষে বাসুদেব বাউলের রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে ধোঁয়াশা বজায় থাকল। তবে মুচকি হেসে বাসুদেব বাউল জানিয়েছেন, "সবার ওপরে মানুষ সত্য, তাহার ওপরে কেউ নয়।"

আবির ঘোষাল

Published by:Elina Datta
First published: