• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • বিকল্প রাস্তা না করে পুরনো রেল সেতু ভাঙা চলবে না দাবি তুলে অবরোধ বিক্ষোভ বর্ধমানে

বিকল্প রাস্তা না করে পুরনো রেল সেতু ভাঙা চলবে না দাবি তুলে অবরোধ বিক্ষোভ বর্ধমানে

বিকল্প রাস্তার দাবিতে আন্দোলনে নামলেন বর্ধমান রেল স্টেশন এলাকার বাসিন্দারা।

বিকল্প রাস্তার দাবিতে আন্দোলনে নামলেন বর্ধমান রেল স্টেশন এলাকার বাসিন্দারা।

বিকল্প রাস্তার দাবিতে আন্দোলনে নামলেন বর্ধমান রেল স্টেশন এলাকার বাসিন্দারা।

  • Share this:

#বর্ধমান: বিকল্প রাস্তার দাবিতে আন্দোলনে নামলেন বর্ধমান রেল স্টেশন এলাকার বাসিন্দারা। বিকল্প রাস্তা না করে পুরনো রেল ওভারব্রিজ ভাঙা যাবে না - এই দাবিতে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু হল। রেলের অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারের অফিসের সামনে মঞ্চ বেঁধে চলল বিক্ষোভ। তার আগে পুরনো রেল সেতু অবরোধ করেন টোটাল চালক ও এলাকার বাসিন্দারা।

পুরনো রেল ওভারব্রিজ ভাঙার কাজ শুরু হতে চলেছে - সেই খবর চাউর হতেই যাতায়াত নিয়ে চিন্তায় পড়েন বাসিন্দারা। সেই সঙ্গে প্রশ্ন ওঠে, সেতু ভেঙে ফেললে বাসিন্দারা যাতায়াত করবেন কিভাবে। সেই প্রশ্নের উত্তর মেলার আগেই সেতু ভাঙার সিদ্ধান্ত জানিয়ে নোটিশ জারি করেছে রেল। সেই নোটিশ সেতুর গায়ে ঝুলিয়েও দেওয়া হয়েছে। শুধু সেতু ভেঙে ফেলাই নয়, সেতুর অ্যাপ্রোচ রোডের জবর দখলও উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে রেল। বর্ধমান রেল স্টেশন লাগোয়া পুরনো রেল ওভারব্রিজ পরিত্যক্ত ঘোষনা হওয়ায় বহু কোটি টাকা ব্যয় কেবল রেল ওভারব্রিজ তৈরি করা হয়েছে। সেই সেতু থেকে অ্যাপ্রোচ রোড হিসেবে চারটি উড়ালপুল বেরিয়েছে। সেই সেতু এতই দীর্ঘ ও উঁচু যে প্রতিদিন তা পায়ে হেঁটে, সাইকেলে পারাপার সম্ভব নয়। উচ্চতার কারণে টোটো উঠতে পারছে না। বাসিন্দারা তাই পুরনো রেল ওভারব্রিজ দিয়েই যাতায়াত করছিলেন। রেলকে বিকল্প পথের ব্যবস্হা করে সেতু ভাঙার প্রস্তাব দিয়েছিল জেলা প্রশাসনও। বিকল্প পথ না হওয়া পর্যন্ত সেতু ভাঙা যাবে না বলে দাবি তুলেছেন বাসিন্দারা। তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে শাসক দল তৃণমূল ও এসইউসিআই। এদিন পুরনো রেল সেতু অবরোধ করে টোটো চালকরা। বিকল্প রাস্তা তৈরি না করলে রেলকে সেতু ভাঙতে দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে তারা। পাশাপাশি বিক্ষোভ মঞ্চ থেকে সুর চড়িয়েছে এসইউসিআই ও তৃণমূল নেতারা। বিকল্পপ পথ এর ব্যবস্থা না করে আরপিএফ নামিয়ে রেল সেতুু ভাঙতে এলে তার পরিণাম ভালো হবে না বলেও হুমকি দিয়েছেন নেতারা।
Published by:Akash Misra
First published: