Home /News /south-bengal /
Bardhaman News: মা-ছেলের গোপন কীর্তি জেনে যাওয়ায়, গলার নলি কেটে পরিচারিকাকে খুন মহিলার !

Bardhaman News: মা-ছেলের গোপন কীর্তি জেনে যাওয়ায়, গলার নলি কেটে পরিচারিকাকে খুন মহিলার !

photo source collected

photo source collected

Bardhaman News: মাঝ রাস্তায় পরিচারিকার গলার নলি কেটে খুন করলেন মহিলা! মা-ছেলের গোপন কীর্তি জেনে যাওয়াই কাল হল পরিচারিকার!

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান: নির্জন জায়গায় ডেকে নিয়ে গিয়ে পরিচারিকাকে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল এক মহিলার বিরুদ্ধে । ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কালনা মহকুমার মন্তেশ্বর থানার মামুদপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্রে খবর, নিহত মহিলার নাম শান্তি হাজরা। এই ঘটনায় কাকলি রায় নামে অভিযুক্ত মহিলাকে হাতেনাতে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয় গ্রামবাসীরা।

    স্থানীয় সূত্রে খবর, মন্তেশ্বর থানার মামুদপুর গ্রামের হাজরা পাড়ায় বাপের বাড়ি, বছর ৫০ এর শান্তি হাজরার। বাঁউই খড়মপুরে তাঁর শ্বশুরবাড়ি। স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় বহু বছর আগেই মামুদপুর গ্রামে বাপের বাড়িতে চলে আসেন শান্তিদেবী। পেশায় দিনমজুর ভাইপো বাপন হাজরার কাছেই থাকতেন তিনি। নিজের খরচ খরচার জন্য একই গ্রামের বাসিন্দা কাকলি রায়ের বাড়িতে তিনি পরিচারিকার কাজ করতেন। জানা গেছে, কাকলি রায় স্বামী পরিত্যক্তা। মামুদপুর গ্রামে তার বাপের বাড়ি। বছর কুড়ি আগে স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর থেকে ছেলেকে নিয়ে বাপের বাড়িতেই রয়েছে কাকলি রায়।

    নিহত মহিলার ভাইপো বাপন হাজরা বলেন, ‘সোমবার কাকলি রায় পিসিমাকে বলে তার নাকি শরীর খারাপ, তাই রাইগ্রামে ডাক্তার দেখাতে যাবে। পিসিমাকেও সঙ্গে যেতে বলে।" তাই সোমবার সন্ধ্যা প্রায় ছটা নাগাদ ওই মহিলার সঙ্গে রাইগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হন তার পিসিমা। পরে জানতে পারেন পিসিমা খুন হয়েছেন। তারপর মামুদপুর এবং রাইগ্রামের মাঝামাঝি জায়গায় ইদগাহের কাছে গিয়ে দেখেন পিসিমার রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে রয়েছে।

    আরও পড়ুন: ১০ টাকায় একটা পাতি লেবু ! লেবু আর পাতি নয় ! আকাশ ছোঁয়া দাম বাজারে ! কেন? জানুন

    স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইদগাহের পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারা কোনওভাবে খুনের কথা জানতে পেরে যায়। তারপর স্থানীয় কয়েকজন যুবক তড়িঘড়ি সেখানে ছুটে আসে। তারা শান্তি হাজরার গলার নলি কাটা রক্তাক্ত ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে। এদিকে কাকলি রায় ছুটে পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয় বাসিন্দারা একটা রক্তমাখা ধারালো অস্ত্রসহ তাকে ধরে ফেলে। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশ প্রথমে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। মঙ্গলবার নিহত মহিলার ভাইপো মন্তেশ্বর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে। এদিন মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়।

    স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, কাকলি রায় ও তার ছেলে বিভিন্ন বেআইনি কারবারের সঙ্গে যুক্ত। আর তাদের গোপন কারবার জেনে ফেলার কারণেই খুন হতে হয়েছে শান্তি হাজরা নামে ওই মহিলাকে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এই খুনের ঘটনায় আর কেউ যুক্ত আছে কিনা তা জানার চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

    Malobika Biswas

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Bardhaman, Bardhaman news

    পরবর্তী খবর