Home /News /south-bengal /

Bardhaman News: ফুটপাতের বাচ্চাদের জন্য উপহারের ঝুলি নিয়ে এল সান্তা! পাশে দাঁড়াল বর্ধমানের ইছলাবাদ কিরণ সংঘ

Bardhaman News: ফুটপাতের বাচ্চাদের জন্য উপহারের ঝুলি নিয়ে এল সান্তা! পাশে দাঁড়াল বর্ধমানের ইছলাবাদ কিরণ সংঘ

Bardhaman News:বড়দিনে সান্তা আসে (Bardhaman News)। রাতে সবার অলক্ষে উপহার রেখে যায় ছোটদের মোজায়। টুপিতে। থাকে মন মাতানো চকোলেট, আরও উপহার। কিন্তু সে তো উচ্চবিত্ত বাড়ির শিশু কিশোরদের জন্য।

  • Share this:

#বর্ধমান:  বড়দিনে সান্তা আসে (Bardhaman News)। রাতে সবার অলক্ষে উপহার রেখে যায় ছোটদের মোজায়। টুপিতে। থাকে মন মাতানো চকোলেট, আরও উপহার। কিন্তু সে তো উচ্চবিত্ত বাড়ির শিশু কিশোরদের জন্য। যাদের গায়ে তেমন শীত পোশাক নেই, মাথার ওপর নিরাপদ ছাদ নেই, তাদের জন্য সান্তা আসে কি? সেই তাদের জন্যও সান্তা এল উপহারের ঝুলি নিয়ে।

"ফিরে আসি বারবার, আমি সান্টা এবার ৬ বার(Bardhaman News)। বড়দিন নিয়ে আসি তোমাদের কাছে,ফুটপাত ঘেঁষে যত জোনাকিরা আছে।ইছলাবাদ কিরণ সংঘ তোমাদের পাশে" -এই বার্তা নিয়েই গত ছয় বছর ধরে বর্ধমান শহরের ইছলাবাদ কিরণ সংঘ শহরের অলিগলির বস্তিবাসীদের ছোটদের পাশে থাকে।

গত বছর করোনা কালেও এই উদ্যোগের ঘাটতি হয়নি। এবারও বর্ধমান স্টেশন, হাসপাতাল রোড, আলমগঞ্জ, বীরহাটা, হাউজিং কলোনী সহ প্রায় প্রতিটি বস্তি এলাকায় কেক, মিষ্টি, চকলেট ভরা বড়দিনের প্যাকেট নিয়ে হাজির কিরণ সংঘের সান্তা। বড়দিনে কেক, চকোলেট সহ মন মাতানো উপহার পেয়ে খুশি কচি কাঁচারা। সেই উপহার পেয়ে বড়দিনের আনন্দ উপভোগ করলো তারাও।

আরও পড়ুন: বড়দিনে 'খাল বিল চুনো পুঁটি পিঠে পুলি' উৎসব ! মজার উৎসবে যান এই ছুটিতে

সারা বছর নানান সামাজিক কাজের মধ্য দিয়েই কিরণ সংঘ নিজেদের নিয়োজিত রাখে(Bardhaman News)। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এর সময় যখন অক্সিজেনের হাহাকার তখনও তারা প্রথম বিনামূল্যে মানুষের দুয়ারে অক্সিজেন পৌঁছে দিয়েছিল তারা। ক্লাবের সম্পাদক শান্তনু বল জানান,  আমাদের ক্লাবের প্রতিটি সদস্য এই দিনটিতে বস্তির ছোটদের হাতে বড়দিনের উপহার তুলে দেবার জন্য উদগ্রীব হয়ে থাকে। তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম আর মানসিকতার জন্যই এতবড় প্রোগ্রাম করা সম্ভব হয়।

আরও পড়ুন: টানা ২ বছর বন্ধ থাকার পর বড়দিনে পর্যটকদের ভিড়ে জমজমাট হাজারদুয়ারী

ক্লাবের সভাপতি পার্থ ধর বলেন, কাল সারা রাত সদস্যরা জেগে এই উপহার, প্যাকেট তৈরি করেছে। আগামী দিনে আরও বড় করে এই অনুষ্ঠান করার ইচ্ছা আছে আমাদের। এছাড়াও আমরা সারা বছর নানান সামাজিক কাজ করে থাকি। কেউ যদি আরও পরিকল্পনার কথা বলেন আমরা সেটাও ভেবে দেখবো।

শরদিন্দু ঘোষ 

Published by:Piya Banerjee
First published:

Tags: Bardhaman, Bardhaman news

পরবর্তী খবর