corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘তিনি’ই সব, বর্ধমান মেমারি কলেজের শিক্ষকরা ভয়ে কাঁপছেন নন টিচিং স্টাফের গর্জনে

‘তিনি’ই সব, বর্ধমান মেমারি কলেজের শিক্ষকরা ভয়ে কাঁপছেন নন টিচিং স্টাফের গর্জনে
Bardhaman Memari College

কলেজ পরিচালনা হোক বা অধ্যাপকদের প্রোমোশন তাঁকে না জানিয়ে পাতাটি নড়বার যো নেই । তিনিই কলেজের হর্তা-কর্তা-বিধাতা । পরিচালন কমিটির সদস্য বা অধ্যক্ষও নন তিনি ।

  • Share this:

#বর্ধমান: কলেজ পরিচালনা হোক বা অধ্যাপকদের প্রোমোশন তাঁকে না জানিয়ে পাতাটি নড়বার যো নেই । তিনিই কলেজের হর্তা-কর্তা-বিধাতা । পরিচালন কমিটির সদস্য বা অধ্যক্ষও নন তিনি । এমন দোর্দন্ডপ্রতাপ যিনি, তিনি একজন তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী । পরিস্থিতি এমনই যে তাঁর হাত থেকে বাঁচতে ইস্তফা দিতে চান পূর্ব বর্ধমানের মেমারি কলেজের অধ্যক্ষ ।

এভাবেই দিন রাত কলেজের অধ্যক্ষ থেকে অধ্যাপক, সবাইকে চমকে যাচ্ছেন মুকেশ শর্মা । কলেজে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে হলেই নাকি তাঁকে জানিয়ে নিতে হবে । নাহলেই বিপদ । এই যেমন ঘটল গরমের ছুটিটা তাঁকে না জানিয়েই ঘোষণা করে ফেলায় । এই গরমে সারাদিন দরজা জানলা বন্ধ, পাখা বন্ধ, স্টাফরুমে আটকে রইলেন অধ্যাপকেরা । মোবাইলও কেড়ে নেওয়া হয় তাঁদের । এমনকি যেতে দেওয়া হয়নি বাথরুমেও । শুধু কলেজের মধ্যেই মুকেশের এমন দাদাগিরি সহ্য করতে হয় তা নয় । কলেজের বাইরে রাস্তাঘাটে একা থাকলেই শিক্ষিকাদের দেখে নেওয়ার হুমকিও দেন এই গ্রুপ সি কর্মী।

অবস্থা এমনই যে পদত্যাগ করতে চেয়ে কলেজ পরিচালন সমিতিকে চিঠি দিয়েছেন অধ্যক্ষ । মুকেশের অত্যাচার থেকে রেহাই পেতে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার রমেন শরের সঙ্গে দেখা করেন অধ্যক্ষ সহ অধ্যাপকেরা । বৃহস্পতিবার দেখা করবেন উপাচার্যের সঙ্গে ।

যদিও সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত মুকেশ শর্মা। তাঁর বক্তব্য সিসিটিভি ফুটেজ যাচাই করলে সত্যিটা কী জানা যাবে । তবে, মুকেশের বক্তব্য মানতে নারাজ অধ্যাপকেরা । আতঙ্কে তাঁরা কলেজমুখোই হতে চাইছেন না ৷

First published: May 31, 2018, 1:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर