দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

এ বছরই বর্ধমান মেডিক্যালের আটতলা বিল্ডিংয়ের সব কাজ শেষ করা হবে

এ বছরই বর্ধমান মেডিক্যালের আটতলা বিল্ডিংয়ের সব কাজ শেষ করা হবে

অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে চিকিৎসা চালানোর পরিবর্তে এখানে অক্সিজেনের পাইপলাইন বসানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে ।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নির্মীয়মান বিল্ডিংয়ের কাজ দ্রুত শেষ করার পরিকল্পনা নেওয়া হলো। ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই আট তলা এই বিল্ডিংয়ের যাবতীয় কাজ শেষ করার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দ্রুত সব কাজ শেষ করার তৎপরতা শুরু হয়েছে। জানুয়ারি মাসে ওই বিল্ডিংয়ে পুরোদমে চিকিৎসা পরিষেবা চালু করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সেইমতো চলতি বছরেই সব কাজ শেষ করতে উদ্যোগী হয়েছে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

দিন দিন রোগীর চাপ বাড়ছে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। শুধু পূর্ব বর্ধমান জেলার বাসিন্দারাই নন, পাশের জেলা পশ্চিম বর্ধমান, নদিয়া, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, হুগলির একটা বড় অংশ থেকে প্রতিদিন অগণিত রোগী আসেন এই মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। পাশের রাজ্য বিহার ঝাড়খণ্ড থেকেও প্রচুর রোগী আসেন। সেই রোগীর চাপ সামাল দিতে হাসপাতালে পরিকাঠামো বাড়ানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল আগেই।

সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী এই মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এমার্জেন্সি বিভাগের সামনে গড়ে তোলা হয়েছে আট তলা বিল্ডিং। সেই বিল্ডিং তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই সম্পূর্ন হয়ে গিয়েছে। এখন ওয়ার্ড সাজানোর শেষ পর্যায়ের কাজ চলছে। সেই কাজ শেষ হলে পুরনো রাধারানি ওয়ার্ড এই বিল্ডিংয়ে উঠে আসবে। শুধু তাই নয়, আরও কয়েকটি বিভাগের চিকিৎসা এখানে হবে। পরিষেবা সামাল দেওয়ার প্রয়োজনে এই বিল্ডিংয়েও থাকবে প্রশাসনিক অফিস।

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, বিল্ডিং তৈরির কাজ সম্পূর্ন হলেও এখনও সেখানে লিফট বসানোর কাজ বাকি রয়েছে। সেই কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থাকে ইতিমধ্যেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ওই বিল্ডিংয়ে অক্সিজেন পাইপলাইন বসানোর কাজ বাকি রয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে চিকিৎসা চালানোর পরিবর্তে এখানে অক্সিজেনের পাইপলাইন বসানোর পরিকল্পনা আগে থেকেই নেওয়া হয়েছে। তাতে চিকিৎসা পরিষেবা সামাল দেওয়ার কাজ অনেকটাই সহজ হবে। এইসব কাজ যাতে ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করা যায় সেই লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠকে।

Published by: Simli Raha
First published: November 20, 2020, 3:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर