নবান্ন অভিযানে পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জ, প্রতিবাদে বর্ধমানে জিটি রোড অবরোধ বামেদের

নবান্ন অভিযানে পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জ, প্রতিবাদে বর্ধমানে জিটি রোড অবরোধ বামেদের
নবান্ন অভিযানে পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জ, প্রতিবাদে বর্ধমানে জিটি রোড অবরোধ বামেদের।

আজ সন্ধ্যায় বর্ধমানের পার্কাস রোডে সিপিএমের জেলা পার্টি অফিস থেকে প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। দলীয় পতাকা নিয়ে কার্জন গেট চত্বরে মিছিল করে এসে জি টি রোড অবরোধ করে তারা।

  • Share this:

#বর্ধমান: নবান্ন অভিযানে বাম ছাত্র-যুবদের ওপর পুলিশ অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে বলে অভিযোগ তুলে বর্ধমানে পথ অবরোধ করল বামফ্রন্ট। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বর্ধমানের কার্জন গেটে জিটি রোড অবরোধ করে তারা। হঠাৎ করে বামফ্রন্টের এই অবরোধ কর্মসূচির জেরে বর্ধমানের জি টি রোড, বি সি রোড সহ বিভিন্ন রাস্তায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। দুর্ভোগে পড়েন বাসিন্দারা।

এ দিন সন্ধ্যায় বর্ধমানের পার্কাস রোডে সিপিএমের জেলা পার্টি অফিস থেকে প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। দলীয় পতাকা নিয়ে কার্জন গেট চত্বরে মিছিল করে এসে জি টি রোড অবরোধ করে তারা। বামেদের এই কর্মসূচিতে দলের মহিলা কর্মীরাও যোগ দেন। হাতে হাত ধরে অবরোধের শামিল হল তারা। অবরোধ থেকে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দেওয়া হয়। প্রায় আধঘন্টা অবরোধ চলার পর পুলিশি হস্তক্ষেপে জি টি রোড ঘেরাও মুক্ত হয়।

বামেদের বিক্ষোভ। বামেদের বিক্ষোভ।

নবান্ন অভিযানে অংশ নেওয়া ছাত্র যুবদের ওপর পুলিশ নির্মমভাবে লাঠি চালিয়েছে, কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটিয়েছে, জলকামান ছুড়েছে বলে অবরোধকারী বাম নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদে আগামীকাল রাজ্যজুড়ে বারো ঘন্টার ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বামফ্রন্ট। অবরোধ থেকে সেই ধর্মঘট সফল করতে জেলার বাসিন্দাদের কাছে আহ্বান জানানো হয়।

বামেদের বিক্ষোভ। বামেদের বিক্ষোভ।

বামফ্রন্টের পূর্ব বর্ধমান জেলার আহ্বায়ক অমল হালদার বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিশ আমাদের ছাত্র যুবদের ওপর নির্মম দমন-পীড়ন নামিয়ে এনেছে। বেকার যুবকরা চাকরি চাইতে গিয়ে, শিক্ষার দাবি জানাতে গিয়ে ভয়ংকর অত্যাচারের মুখোমুখি হলেন। অনেকে আহত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের অনেকেই পূর্ব বর্ধমান জেলার বাসিন্দা। এই ঘটনার প্রতিবাদে এই পথ অবরোধ।

অন্যদিকে, তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা নেতৃত্বের বক্তব্য, বামেদের প্রতিবাদের কোনও নৈতিক অধিকার নেই। কারণ তারা মিছিলের নামে পুলিশের ওপর ইট পাথর ছুড়েছে। পুলিশকে মারধর করেছে। এ রাজ্যের মানুষই বাংলাকে সচল রাখবে।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published:

লেটেস্ট খবর