corona virus btn
corona virus btn
Loading

২৫ হাজার রেশনের স্পেশাল কুপন দেওয়ার কথা, নেওয়ার লোকই পাচ্ছে না জেলা প্রশাসন!

২৫ হাজার রেশনের স্পেশাল কুপন দেওয়ার কথা, নেওয়ার লোকই পাচ্ছে না জেলা প্রশাসন!

পূর্ব বর্ধমান জেলায় ২৫ হাজার স্পেশাল কুপন ইস্যু করেছিল রাজ্য খাদ্য দফতর। কিন্তু তথ্য বলছে স্পেশাল কুপনের জন্য আবেদন জমা পড়েছে খুবই কম।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: রেশনের স্পেশাল কুপন দেওয়ার লোক পাচ্ছে না পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন! গত দু’মাসে এই জেলায় দেখা গিয়েছে, রেশন না পেয়ে অনেকেই খাদ্য দফতরের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন।তাঁদের অনেকেরই অভিযোগ ছিল, ডিজিটাল রেশন কার্ডের জন্য বহু আগে আবেদন করেও এখনও সেই কার্ড হাতে পাননি। তার ফলে রেশন পাচ্ছেন না তাঁরা। আবার অনেকের অভিযোগ ছিল, ডিজিটাল রেশন কার্ড হাতে থাকা সত্ত্বেও নাম নথিভুক্ত না হওয়ার অজুহাত দেখিয়ে রেশন ডিলার তাঁদের খাদ্য সামগ্রী দিতে চাইছেন না। আবার জেলায় এখনও প্রকৃত দরিদ্র এমন বহু মানুষের রেশন কার্ড নেই। সেই সব বাসিন্দাদের হাতে রেশনের খাদ্য সামগ্রী তুলে দিতে স্পেশাল কুপনের ব্যবস্থা করেছিল রাজ্য সরকার।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় প্রায় সত্তর হাজার বাসিন্দাকে স্পেশাল কুপন ইস্যু করতে হতে পারে বলে মনে করেছিল জেলা প্রশাসন। এর মধ্যে বাইরের রাজ্য থেকে আসা বাসিন্দাদের টেম্পরারি কুপন দিয়ে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হবে বলে কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল। পূর্ব বর্ধমান জেলায় ২৫ হাজার স্পেশাল কুপন ইস্যু  করেছিল রাজ্য খাদ্য দফতর। কিন্তু তথ্য বলছে স্পেশাল কুপনের জন্য আবেদন জমা পড়েছে খুবই কম। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আবির বালি জানান, ২৫ হাজার স্পেশাল কুপন পূর্ব বর্ধমান জেলায় এসেছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে মাত্র ২৮৬৩ জন স্পেশাল কুপনের জন্য আবেদন করেছেন। এছাড়াও বাইরের রাজ্য থেকে আসা বাসিন্দাদের  সকলকে রেশনে বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রী দিতে ৩ লাখ ৩৪ হাজার টেম্পোরারি কুপন  ইস্যু করার সুযোগ ছিল। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, স্পেশাল  কুপন দেওয়ার জন্যই লোক পাওয়া যাচ্ছে না। জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, মাত্র ১ হাজার ২০০ জনকে এখনও পর্যন্ত স্পেশাল কুপন দেওয়া হয়েছে। বাকি আবেদনপত্র খতিয়ে দেখে দ্রুত তাঁদের কাছে সেই কুপন পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

জেলা প্রশাসন স্পেশাল কুপন দেওয়ার লোক না পেলেও বাসিন্দারা কিন্তু অন্য কথা বলছেন। তাঁরা বলছেন, স্পেশাল কুপন, টেম্পোরারি কুপন পেতে গেলে কোথায় কিভাবে আবেদন করতে হবে তা জেলার বাসিন্দাদের সে ভাবে জানানো হয়নি। ফলে এ সব বিষয় অনেকের অগোচরেই থেকে গিয়েছে। সে জন্যই অনেকে রেশন না পেয়ে আজ ডিলারের কাছে কাল প্রশাসনের দফতরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। স্পেশাল কুপন, টেম্পোরারি কুপনের ব্যাপারে গ্রামে গ্রামে ঘুরে জেলা প্রশাসনের প্রচার চালানো উচিত বলে মনে করছেন তাঁরা।

Published by: Simli Raha
First published: June 11, 2020, 4:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर