corona virus btn
corona virus btn
Loading

খুলে গিয়েছে বাবা বুড়োরাজের মন্দির, ধীরে ধীরে ভিড় বাড়ছে ভক্তদের

খুলে গিয়েছে বাবা বুড়োরাজের মন্দির, ধীরে ধীরে ভিড় বাড়ছে ভক্তদের

গত ১ জুন মন্দির ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। প্রথম দু’দিন ভক্তদের সেই ভাবে দেখা না মিললেও আস্তে আস্তে ভিড় বাড়তে শুরু করেছে।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: লক ডাউন পর্ব কাটিয়ে ভক্তদের জন্য খুলে গিয়েছে পূর্বস্থলীর বাবা বুড়োরাজের মন্দির। ধীরে ধীরে মন্দিরে ভক্তদের ভিড় বাড়ছেন। মন্দিরের সামনে রয়েছে পুজোর উপকরণের বিভিন্ন দোকান। লকডাউনের জেরে সেইসব দোকানে বিক্রিবাটা বন্ধ ছিল। ফের মন্দির খোলায় খুশি সেই সব দোকানের সঙ্গে যুক্ত বিক্রেতারা। দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসুক, বাবা বুড়োরাজের কাছে সেই প্রার্থনাই করছেন তাঁরা।

পূর্ব বর্ধমানের  কালনা মহকুমার পূর্বস্থলী দুই নম্বর ব্লকের পাটুলিতে বাবা বুড়োরাজের মন্দির। সারা বছরই মন্দিরে কমবেশি ভক্ত সমাগম হয়। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনের  জেরে ভক্তদের জন্য মন্দির বন্ধ রাখা হয়েছিল। গত ১ জুন মন্দির ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। প্রথম দু’দিন ভক্তদের সেই ভাবে দেখা না মিললেও আস্তে আস্তে ভিড় বাড়তে শুরু  করেছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মন্দিরে পুজো পাঠ চলছে।

মন্দির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বাবা বুড়োরাজের মন্দিরে ঢোকার আগে ভক্তদের হাতে  স্যানিটাইজার দেওয়া হচ্ছে। মুখে মাস্ক লাগানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সেইসঙ্গে মন্দিরে কোনও সময় যাতে ভিড় না হয়ে যায় তা দেখা হচ্ছে। সে জন্য মন্দিরের ভিতর একসঙ্গে ১০  জনের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

এই মন্দিরে বছরের সবচেয়ে বেশি জন সমাগম হয় বুদ্ধ পূর্ণিমায়। সেদিন বাবা বুড়োরাজের পুজো উপলক্ষে লক্ষ লক্ষ ভক্তের সমাগম হয়। কালনা কাটোয়া নদীয়া মুর্শিদাবাদ থেকে দলে দলে হেঁটে আসেন ভক্তরা। সেই পুজো উপলক্ষে কয়েকদিনের জন্য বিশাল মেলা বসে। বাড়িতে বাড়িতে দূর দূরান্ত থেকে আত্মীয়রা আসেন। বুড়োরাজের সে মেলা অস্ত্র মেলা নামেও পরিচিত। সেখানে মেলার আড়ালে বোমা বন্দুক সহ নানান আগ্নেয়াস্ত্রের বেচাকেনা হয়ে থাকে। এবার লক ডাউনের জেরে সেই মেলা বা ভক্ত সমাগম বন্ধ ছিল। মন্দির বন্ধ থাকায় মুষড়ে পড়েছিলেন এলাকার ছোট ব্যবসায়ীরা। ফের মন্দির খুলে যাওয়ায় খুশি সকলেই।

Published by: Pooja Basu
First published: June 15, 2020, 8:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर