রাশ আলগা হচ্ছে বিজেপির? খেজুরিতে তৃণমূল প্রার্থীর উপর হামলায় উঠছে প্রশ্ন

যুযুধান

খেজুরিতে হামলার মুখে পড়লেন তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতিম দাস। তৃণমূলের মিছিলের উপর হামলা চালানোর পাশাপাশি ভাঙচুর করা হয় পার্থপ্রতিমের গাড়িও।

  • Share this:

    #খেজুরি: ভোটের বাকি আর হাতে গোনা দিন। কিন্তু ক্রমেই যেন উত্তপ্ত হয়ে উঠছে পূর্ব মেদিনীপুর। নন্দীগ্রামের প্রেস্টিজ ফাইটের আঁচ পড়ছে গোটা জেলায়। কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ। নন্দীগ্রামে যেমন বারবার শুভেন্দু অধিকারীকে বিক্ষোভের মুখে পড়তে হচ্ছে, তেমনি সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শিশির অধিকারীও সোমবার রাতে তৃণমূলের বিক্ষোভের মুখে পড়েছেন। এবার ওই জেলারই খেজুরিতে হামলার মুখে পড়লেন তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতিম দাস। তৃণমূলের মিছিলের উপর হামলা চালানোর পাশাপাশি ভাঙচুর করা হয় পার্থপ্রতিমের গাড়িও।

    মঙ্গলবার সকালে প্রচারে বেড়িয়েছিলেন তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতিম দাস ও বিজেপি প্রার্থী শান্তনু প্রামাণিক। সেই সময়ই তৃণমূল-বিজেপি দুদলের মিছিল মুখোমুখি এসে পড়ে। তখন অবশ্য বিজেপি প্রার্থী সেখানে ছিলেন না। শুরুতে দুদলের কর্মীরা স্লোগান দিতে থাকলেও এরপরই পরিস্থিতি আয়ত্তের বাইরে চলে যায়। হাতাহাতি বাঁধে দুপক্ষের মধ্যে। তখনই পার্থপ্রতিমের গাড়ির উপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। অবশ্য পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আগেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় খেজুরি থানার পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী।

    তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতীম দাসের অভিযোগ, 'সকালে নির্বাচনী প্রচারে খেজুরি বীরবন্দ এলাকায় গিয়েছিলাম। তখনই বিজেপির কিছু দুষ্কৃতী গাড়িতে হামলা চালায়। গাড়ির কাচ ভেঙে দেয়। গোটা ঘটনা পুলিশকে জানিয়েছি।' বিজেপি অবশ্য অভিযোগ করেছে, তৃণমূলের মিছিল থেকেই বিজেপির উদ্দেশে গালিগালাজ করা হচ্ছিল। তাতেও পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

    আসলে ভোট যত এগোচ্ছে, ততই পালটে যাচ্ছে পূর্ব মেদিনীপুরের পরিস্থিতি। মঙ্গলবারই তৃণমূলের তরফে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করা হয়েছে, নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর মদতে যে আবহ তৈরি হয়েছে তাতে শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন হওয়া সম্ভব নয়। চারটি বাড়ি ভাড়া করে বহিরাগত দুষ্কৃতীদের আশ্রয় দিয়েছেন শুভেন্দু। তৃণমূলের অভিযোগ, নন্দীগ্রামের বেশ কয়েকটি বাড়িতে বহিরাগতরা আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের দিয়ে ভোটের দিন কোনও বড় ঘটনা ঘটাতে পারে বলে আশঙ্কা তৃণমূলের। তৃণমূলের বক্তব্য, স্থানীয় ভাবে পুলিশকে এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেও লাভ হয়নি।

    এদিকে, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরপরই পটাশপুরে বিজেপি প্রার্থীর হয়ে প্রচার করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েছেন শিশির অধিকারী। সোমবার রাতে সভাস্থলে পৌঁছতেই তৃণমূল সমর্থকরা সেখানে ভিড় করে স্লোগান তুলতে থাকে। স্লোগান উঠতে থাকে শিশিরবাবু চিটিংবাজ, মীরজাফর। পরিস্থিতি একটা সময়ের পর কার্যত হাতের বাইরে বেরিয়ে যায়। খণ্ডযুদ্ধ বেধে যায় বিজেপি তৃণমূলের মধ্যে। সূত্রের খবর ঘটনায় ক্ষুব্ধ শিশির অধিকারী নিজে তৃণমূল কর্মীদের দিকে তেড়ে যান।

    Published by:Suman Biswas
    First published: