দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কাল থেকে চলবে ট্রেন, ফের ব্যস্ততা শুরু পূর্ব বর্ধমানের ছানা বিক্রেতাদের

কাল থেকে চলবে ট্রেন, ফের ব্যস্ততা শুরু পূর্ব বর্ধমানের ছানা বিক্রেতাদের

ছানা ব্যবসায়ীরা বলছেন, দিনে কেউ দশ কেজি, কেউ পনেরো কেজি পর্যন্ত ছানা তৈরি করেন। গাড়ি করে সেই ছানা পৌঁছনোর খরচ ওঠে না। তাছাড়া সময়ে ছানা পৌঁছতে না পারলে তা নষ্ট হয়ে যাবার সম্ভাবনা থাকে।

  • Share this:

#বর্ধমান: আর শুধু রাতটুকুর অপেক্ষা। বুধবার সকাল থেকেই হাওড়া বর্ধমান কর্ড ও মেন লাইনে শুরু হয়ে যাবে লোকাল ট্রেন চলাচল। করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য সাড়ে সাত মাস বন্ধ ছিল ট্রেন পরিষেবা। আবার ট্রেন চলাচল শুরু হতে চলায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন পূর্ব বর্ধমান জেলার ছানা বিক্রেতারা। ফের শুরু হয়েছে ছানা তৈরির কাজ। রেল লাইনে ট্রেনের চাকা গড়ালেই শুরু হয়ে যাবে কলকাতা ও শহরতলিতে ছানা পাঠানোর ব্যস্ততা।

পূর্ব বর্ধমান জেলার মেমারি জামালপুর, রায়না, মন্তেশ্বর,ভাতার, কাটোয়া ও তার আশপাশ এলাকায় বহু পরিবার ছানার কারবারের সঙ্গে যুক্ত। এখানকার ছানা প্রতিদিন রেলপথে কলকাতা, চন্দননগর, শ্রীরামপুর সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে যায়। করোনা পরিস্থিতির কারণে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় রাতারাতি কাজ হারিয়েছিলেন কয়েক হাজার ছানা ব্যবসায়ী। দুধ থেকে ছানা তৈরি করে সেই ছানা মিষ্টির দোকানে পাঠিয়ে যে রোজগার হয় তাতেই সংসার চলে বেশিরভাগ ছানা বিক্রেতার। ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কাজ হারিয়েছেন তাঁরা। অনেকেই পেটের তাগিদে অন্য পেশা খুঁজে নিতে বাধ্য হয়েছেন। কেউ কেউ দীর্ঘ পথ মোটর সাইকেলে ছানা পৌঁছে দেওয়ার কাজ চালিয়ে গিয়েছেন। বাকিরা ট্রেন চলাচলের অপেক্ষায় দিন গুনছিলেন।

ছানা ব্যবসায়ীরা বলছেন, দিনে কেউ দশ কেজি, কেউ পনেরো কেজি পর্যন্ত ছানা তৈরি করেন। গাড়ি করে সেই ছানা পৌঁছনোর খরচ ওঠে না। তাছাড়া সময়ে ছানা পৌঁছতে না পারলে তা নষ্ট হয়ে যাবার সম্ভাবনা থাকে। রেলপথে কম সময়ে কম খরচে সেই ছানা পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছিল। কিন্তু ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বহু ছানা বিক্রেতা কাজ হারিয়েছিলেন। ফের ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে। কাজ ফিরে পাবার আশায় নতুন করে ব্যস্ততা তৈরি হয়েছে ছানা বিক্রেতাদের মধ্যে।

ট্রেন চলাচল শুরু হওয়ায় খুশি মিষ্টান্ন বিক্রেতারাও। কলকাতা হুগলি বর্ধমানের বহু মিষ্টান্ন ব্যবসায়ী ছানার অভাবে মিষ্টি তৈরি করতে পারছিলেন না। ভাল মানের ছানাও মিলছিল না। আবার বাড়তি দাম দিয়ে ছানা কিনতে হচ্ছিল। তাতে বিশেষ লাভ হচ্ছিল না।এবার সঠিক সময়ে ভাল মানের ছানা মিলবে বলেই মনে করছেন তাঁরা।

Published by: Pooja Basu
First published: November 10, 2020, 1:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर