• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • "কোথাও যাবি না, চলে আয়", অনুব্রতর ফোন কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুন্ডুকে

"কোথাও যাবি না, চলে আয়", অনুব্রতর ফোন কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুন্ডুকে

বুধবার রাতে কাঁকসায় সাংসদ সুনীল মন্ডলের বাড়িতে শুভেন্দু অধিকারীর ডাকা বৈঠকে যোগ দেন কালনা তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু।

বুধবার রাতে কাঁকসায় সাংসদ সুনীল মন্ডলের বাড়িতে শুভেন্দু অধিকারীর ডাকা বৈঠকে যোগ দেন কালনা তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু।

বুধবার রাতে কাঁকসায় সাংসদ সুনীল মন্ডলের বাড়িতে শুভেন্দু অধিকারীর ডাকা বৈঠকে যোগ দেন কালনা তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু।

  • Share this:

#বর্ধমান: "তুই কোথাও যাস না। তোর মত ছেলেকে দলের খুব প্রয়োজন। তুই চলে আয়।" কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুন্ডুকে ফোন করে একথা বললেন দাপুটে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা দলের বীরভূম জেলার সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। বুধবার রাতেই বিধায়ককে ফোন করেছিলেন অনুব্রত। আজ, বৃহস্পতিবার, কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু নিজেই সে কথা জানান।

বিধানসভা নির্বাচনের ঢাকে কাঠি পড়তেই দলবদল এরাজ্যে রাজনীতিতে বিশেষ মাত্রা যোগ করেছে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের শাসক দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। শনিবার তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা। তাঁর সঙ্গে আরও কয়েকজন বিধায়ক বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে দাবি করেছেন দাদার অনুগামীরা। এই পরিস্থিতিতে ভাঙ্গন রুখতে তৎপরতা বাড়িয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। রাজ্য নেতারা বেসুরো নেতা-মন্ত্রী বিধায়কদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। তাঁদের সঙ্গে আলোচনা হচ্ছে। তাঁদের ক্ষোভ বিক্ষোভ খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার ভাবনাচিন্তা চলছে। ঠিক সেই পরিস্থিতিতেই কালনার বিধায়ককে ফোন করলেন অনুব্রত মণ্ডল।

আরও পড়ুন "এখনও দল ছাড়ার কথা ভাবিনি, শুভেন্দু অধিকারীর প্রস্তাব ভেবে দেখব," বললেন কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু

বুধবার রাতে কাঁকসায় সাংসদ সুনীল মন্ডলের বাড়িতে শুভেন্দু অধিকারীর ডাকা বৈঠকে যোগ দেন কালনা তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু। ইতিমধ্যেই তাঁর সঙ্গে আলোচনায় বসা চূড়ান্ত করেছেন মন্ত্রী মলয় ঘটক। বুধবার রাতেই কালনার বিধায়ককে ফোন করেন অনুব্রতও।

বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডুর বলেন,"একটা সময় আমি এলাকার বাসিন্দাদের ক্ষোভের কথা দলের জেলা সভাপতি থেকে শুরু করে শীর্ষ নেতাদের অনেককেই জানিয়েছিলাম। তখন আমার বক্তব্যকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। এখন তাদের অনেকেই ফোন করছে। সেসব বেশিরভাগ ফোন আমি ধরছি না। মলয়দাকে ভালোবাসি। তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছে। অনুব্রত মণ্ডল ফোন করেছিলেন। বললেন, তোর মতো ছেলে কেন যাবে! তুই কোথাও যাবি না।" বড় দাদার মতই বিশ্বজিৎকে দল না ছাড়ার পরামর্শ দেন অনুব্রত।

কোথায় যেতে নিষেধ করছেন অনুব্রত? বিশ্বজিৎ বলেন, "হয়তো বিজেপিতে যাওয়ার যে জল্পনার কথা নানা মহলে উঠছে সে কথাই উনি বলতে চেয়েছেন। শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে বৈঠক করতে কাঁকসা গিয়েছিলাম। সেজন্যও উনি ওই কথা বলেছেন। আমি যাতে দল না ছাড়ি সেটাই বলতে চেয়েছেন তিনি।"

Published by:Pooja Basu
First published: