• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ডুমুরজলায় ঝাঁঝহীন আক্রমণ অমিত শাহের

ডুমুরজলায় ঝাঁঝহীন আক্রমণ অমিত শাহের

সোমবার ডুমুরজলায় বিজেপির সভায় অমিত শাহের চিরাচরিত ঝাঁঝালো ভাষণ শোনা গেল না ৷ কিন্তু সারদা থেকে সীমান্তে অনুপ্রবেশের মতো ইস্যুতে মুখ খুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণও শানালেন। কিন্তু বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির গলায় সেই পরিচিত ঝাঁঝ যেন এদিন কোথাও একটা উধাও হয়ে গিয়েছিল ৷ রাজ্যে বিজেপি সরকার গঠিত হলেই আসবে উন্নয়ন। সত্যি হবে রাজ্যের আচ্ছে দিন। কিন্তু কীভাবে, কোন কৌশলে ক্ষমতা দখল? তার ব্যাখ্যা মিলল না অমিতের কথায়।

সোমবার ডুমুরজলায় বিজেপির সভায় অমিত শাহের চিরাচরিত ঝাঁঝালো ভাষণ শোনা গেল না ৷ কিন্তু সারদা থেকে সীমান্তে অনুপ্রবেশের মতো ইস্যুতে মুখ খুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণও শানালেন। কিন্তু বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির গলায় সেই পরিচিত ঝাঁঝ যেন এদিন কোথাও একটা উধাও হয়ে গিয়েছিল ৷ রাজ্যে বিজেপি সরকার গঠিত হলেই আসবে উন্নয়ন। সত্যি হবে রাজ্যের আচ্ছে দিন। কিন্তু কীভাবে, কোন কৌশলে ক্ষমতা দখল? তার ব্যাখ্যা মিলল না অমিতের কথায়।

সোমবার ডুমুরজলায় বিজেপির সভায় অমিত শাহের চিরাচরিত ঝাঁঝালো ভাষণ শোনা গেল না ৷ কিন্তু সারদা থেকে সীমান্তে অনুপ্রবেশের মতো ইস্যুতে মুখ খুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণও শানালেন। কিন্তু বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির গলায় সেই পরিচিত ঝাঁঝ যেন এদিন কোথাও একটা উধাও হয়ে গিয়েছিল ৷ রাজ্যে বিজেপি সরকার গঠিত হলেই আসবে উন্নয়ন। সত্যি হবে রাজ্যের আচ্ছে দিন। কিন্তু কীভাবে, কোন কৌশলে ক্ষমতা দখল? তার ব্যাখ্যা মিলল না অমিতের কথায়।

  • News18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #হাওড়া: সোমবার ডুমুরজলায় বিজেপির সভায় অমিত শাহের চিরাচরিত ঝাঁঝালো ভাষণ শোনা গেল না ৷ কিন্তু সারদা থেকে সীমান্তে অনুপ্রবেশের মতো ইস্যুতে মুখ খুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণও শানালেন। কিন্তু বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির গলায় সেই পরিচিত ঝাঁঝ যেন এদিন কোথাও একটা উধাও হয়ে গিয়েছিল ৷ রাজ্যে বিজেপি সরকার গঠিত হলেই আসবে উন্নয়ন। সত্যি হবে রাজ্যের আচ্ছে দিন। কিন্তু কীভাবে, কোন কৌশলে ক্ষমতা দখল? তার ব্যাখ্যা মিলল না অমিতের কথায়।

    রাজনাথের উল্টো পথে হাঁটলেন অমিত শাহ । চিটফান্ড নিয়ে তীব্র আক্রমণ করলেন তৃণমূলকে। মুখ্যমন্ত্রীর আঁকা ছবি বিক্রির প্রসঙ্গেও ছুঁড়ে দিলেন কটাক্ষ। তৃণমূলের পরিবর্তনের স্লোগান নিয়েও সরব হন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি ৷ অমিতের অভিযোগ, ভোট রাজনীতির স্বার্থে দেশবিরোধীদের মদত দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই সূত্রেই খাগড়াগড়ের কথা টেনে আনেন বিজেপি সভাপতি। গোটা দেশে বেআইনি ভাবে অনুপ্রবেশ কমলেও পশ্চিমবঙ্গে তা বাড়ছে বলেই দাবি অমিতের। লোকসভা নি্র্বাচনে রাজ্যে ১৭ শতাংশ ভোট পেয়েছে বিজেপি। বক্তব্যের শুরুতেই সেই কথা টেনে এনেছিলেন বিজেপি সভাপতি। তারপর উপনির্বাচন ও পুরসভার নির্বাচনগুলিতে ক্রমশ নেমেছে সেই গ্রাফ। রাজ্যে দলীয় কর্মীদের মনোবল বাড়াতে দলীয় সভাপতির কাছে আরও চড়া সুরে আক্রমণের আশায় ছিলেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা। কিন্তু সোমবারের সভায় সেই আশা পূরণ হয়নি। রাজ্যে তৃণমূলের সঙ্গে টক্কর দেওয়ার ক্ষেত্রে পথ দেখানোর পথেও বা হাঁটলেন কই বিজেপি সভাপতি!

    First published: