corona virus btn
corona virus btn
Loading

লক ডাউনে অ্যাম্বুল্যান্সে মোটা টাকার বিনিময়ে যাত্রী পরিবহনের অভিযোগ ! আটক চালক ও যাত্রীরা

লক ডাউনে অ্যাম্বুল্যান্সে মোটা টাকার বিনিময়ে যাত্রী পরিবহনের অভিযোগ ! আটক চালক ও যাত্রীরা

মোটা টাকা ভাড়ার বিনিময়ে এই যাত্রী পরিবহণ চলছিল বলে অভিযোগ। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছেন পুলিশ আধিকারিকরা।

  • Share this:

#বর্ধমান: অ্যাম্বুল্যান্সে হুটার বাজিয়ে চলছে যাত্রী পরিবহণ! মোটা টাকায় অ্যাম্বুলান্সে যাত্রীদের পার করা হচ্ছে রাজ্যের এক প্রান্ত থেকে আর এক প্রান্তে! এমনই এক অ্যাম্বুল্যান্সকে আটক করল বর্ধমান থানার পুলিশ। লক ডাউন অমান্য করে যাত্রী পরিবহণের অভিযোগে একটি অ্যাম্বুলান্সকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে চালক ও যাত্রীদের। মোটা টাকা ভাড়ার বিনিময়ে এই যাত্রী পরিবহণ চলছিল বলে অভিযোগ। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছেন পুলিশ আধিকারিকরা।

লক ডাউনের জেরে বন্ধ যান চলাচল। সরকারি বেসরকারি বাস ট্রেন চলাচল বন্ধ। বিশেষ কারণ ছাড়া রাস্তায় নামছে না অন্যান্য গাড়িও। ছাড় শুধু অ্যাম্বুলান্সে। পুলিশ অন্যন্য গাড়ি আটকে রাস্তায় নামার কারণ জানতে চাইলেও অ্যাম্বুল্যান্স দেখলেই তার জন্য রাস্তা করে দিচ্ছে। সেই সুযোগই কাজে লাগাচ্ছে বেশ কিছু অ্যাম্বুল্যান্স চালক। রোগী পরিবহণের নামে যাত্রী পরিবহণ করছে তারা। কেউ আটকে পড়েছেন খড়গপুরে। তাকে বর্ধমান থেকে আনতে ছুঠছে অ্যাম্বুল্যান্স। কেউ আবার আসানসোল থেকে কলকাতা যাচ্ছেন অ্যাম্বুল্যান্সে। দূর থেকে পুলিশ দেখলে সুস্থ যাত্রীকে বেডে শুইয়ে রোগী বলে পরিচয় দেওয়া হচ্ছে।

একটি অ্যাম্বুল্যান্স বর্ধমানের তেলিপুকুর, উল্লাস মোড় থেকে যাত্রী তুলে কাটোয়ার দিকে যাচ্ছে বলে খবর পায় পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ জি টি রোডে বীরহাটা মোড়ে অ্যাম্বুল্যান্সটিকে আটকানোর চেষ্টা করে। কিন্তু দ্রুত গতিতে সেই এলাকা পেরিয়ে যায় অ্যাম্বুল্যান্সটি। বীরহাটা ফাঁড়ি থেকে খবর যায় কার্জন গেটে। দল বেঁধে কার্জন গেটে পথ আটকে দাঁড়ায় পুলিশ। সেখানে গিয়ে দাঁড়াতে বাধ্য হয় অ্যাম্বুল্যান্সটি। তাতে চালক সহ আটজন ছিল। চালক দাবি করেন, নার্সিংহোম থেকে রোগী বাড়ি নিয়ে যেতে এসেছে অ্যাম্বুল্যান্স। কিন্তু তাতে বাকি সাতজন কারা, যাত্রী ভর্তি অ্যাম্বুলান্সটিতে রোগী কোথায় বসবে তার কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি চালক। এরপরই চালক ও যাত্রীস-হ অ্যাম্বুল্যান্সটি আটক করা হয়। তাদের প্রত্যেকের নাম পরিচয় যাচাই করা হচ্ছে। কী উদ্দেশ্যে তারা কোথায় যাচ্ছিল সে সব দেখা হচ্ছে।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: March 27, 2020, 3:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर