corona virus btn
corona virus btn
Loading

অ্যাম্বুলেন্স নিতে চাইছে না, জেলায় জেলায় করোনা আতঙ্কে দিশেহারা জ্বর সর্দির রোগীরা

অ্যাম্বুলেন্স নিতে চাইছে না, জেলায় জেলায় করোনা আতঙ্কে দিশেহারা জ্বর সর্দির রোগীরা

রানাঘাটের অমিত দাস, নিউ ব্যারাকপুরের রেখা সান্যালের পর বর্ধমানের ডিম্পল মন্ডল।

  • Share this:

#রানাঘাট: রানাঘাটের অমিত দাস, নিউ ব্যারাকপুরের রেখা সান্যালের পর বর্ধমানের ডিম্পল মন্ডল। রবিবার সকাল থেকেই বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে পর পর রোগীর লাইন। সবাই জ্বর,সর্দি,কাশি নিয়ে আসছেন। তবে কারওর বিদেশযাত্রার কোন ইতিহাস নেই। যাঁদের বাইরে যাওয়ার বা বিদেশযাত্রার কোনো ইতিহাস নেই, তাঁদের জেলার কোন হাসপাতাল কিংবা নার্সিংহোম, বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে নভেল করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে পরীক্ষার জন্য পাঠালেও হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে সেই পরিবারকে।

এই সমস্যার পাশাপাশি নতুন সমস্যা দেখা দিয়েছে। জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে নভেল করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে অ্যাম্বুলেন্স রিফিউজ করা। জ্বর, সর্দি, কাশি আক্রান্ত কোন রোগিকে বর্ধমানের কোন নার্সিংহোম বা বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে পাঠান হলে কোনও অ্যাম্বুলেন্স চালকই যেতে রাজি হচ্ছেন না বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে।

বর্ধমান শহরের একটি নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন ছিলেন ২৩ বছরের ডিম্পল মন্ডল। শ্বাসকষ্ট নিয়ে। তারপর সেখানকার চিকিৎসকেরা লিখে দেন বেলেঘাটা আইডি যেতে হবে । সন্দেহ করোনা হয়েছে তাঁর। পরিবার ডিম্পলকে নিয়ে যায় বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসকেরা বলেছেন, এখানে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই, বেলেঘাটা আইডি হাসপাতাল চলে যান। তারপরই বিপর্যয়। কোন অ্যাম্বুলেন্স রাজি হয় না করোনা ভাইরাস সন্দেহভাজন শোনার পর। অনেক কষ্টের সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চেষ্টার পর পাওয়া যায় অ্যাম্বুলেন্স ।

কথায় কথায় শ্বাসকষ্ট, জ্বর, সর্দি, কাশি দেখলেই জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল, শহরের বিভিন্ন নার্সিংহোম,বেসরকারি হাসপাতাল কিংবা অন্য জায়গা থেকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়ায় চাপ বাড়ছে এখানে । আইডি কর্তৃপক্ষের কথায়, ‘এতে আসল চিকিৎসার সমস্যা হবে। একইভাবে যেভাবে অ্যাম্বুলেন্সের তরফে বারবার রিফিউজ করা হচ্ছে সেটাও কিন্তু নতুন করে মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের কাছে।

ABHIJIT CHANDA

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: March 15, 2020, 7:22 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर