corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রাক প্রাথমিকে বর্ণ বৈষম্যের পাঠ! ইংরেজি বইতে 'Ugly'র সঙ্গে কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের ছবি, বিতর্ক চরমে

প্রাক প্রাথমিকে বর্ণ বৈষম্যের পাঠ! ইংরেজি বইতে 'Ugly'র সঙ্গে কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের ছবি, বিতর্ক চরমে

বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল গার্লস স্কুলের প্রাক প্রাথমিকে একটি ইংরেজি বই পড়ানো হচ্ছে । সেই বইকে ঘিরেই যত বিতর্ক ।

  • Share this:

#বর্ধমান: প্রাক প্রাথমিকের ইংরেজি পাঠ্য বইয়ে বর্ণবৈষম্য ! আর সেই ছবিকে কেন্দ্র করে রাজ্য জুড়ে বিতর্ক চরমে । বইটিতে ইংরেজি 'U' অক্ষর সম্পর্কে পড়ুয়াদের পরিচিত করাতে 'Ugly' শব্দ লেখা হয়েছে । সেই সঙ্গে এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তির ছবি দিয়ে তার পাশে বাংলায় লেখা হয়েছে 'কুৎসিত' । তাই নিয়েই তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে বর্ধমানে । বর্ধমানের নামি স্কুল বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল গার্লস স্কুলের প্রাক প্রাথমিক বিভাগ থেকে ওই পাঠ্য বই বাতিলের দাবি তুলেছেন অভিভাবকরা । এই ধরণের পাঠ শিশুমনে কুপ্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন তাঁরা ।

বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল গার্লস স্কুলের প্রাক প্রাথমিকে একটি ইংরেজি বই পড়ানো হচ্ছে । সেই বইকে ঘিরেই যত বিতর্ক । ইতিমধ্যেই বিষয়টি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা দফতরের গোচরে এনেছেন অভিভাবকরা । জেলা শিক্ষা দফতর বিষটির গুরুত্ব অনুধাবন করে তা রাজ্য শিক্ষা দফতরের আধিকারিকদের বিস্তারিত জানিয়েছেন । ওই বই যত শীঘ্র সম্ভব তুলে নেওয়া হবে বলে রাজ্য শিক্ষা দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে ।

বর্ধমানের  রামকৃষ্ণ পল্লি এলাকার বাসিন্দা সুদীপ মজুমদার প্রথম বিষয়টি জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শককে জানান । সুদীপবাবু কলকাতার বঙ্গবাসী  কলেজের ( সান্ধ্য) অধ্যাপক । তাঁর মেয়ে বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল গার্লস স্কুলের প্রাক প্রাথমিকের ছাত্রী । সুদীপ মজুমদার বলেন, মেয়েকে পড়াতে গিয়ে দেখি মানবতাবিরোধী বর্ণবৈষম্য মূলক বিষয় পড়ান হচ্ছে । U দিয়ে তো অনেক শব্দ হতে পারত । 'U' দিয়ে 'Umbrella' হতে পারে । তা না করে আগলি মানে কুৎসিত বলার পর এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তির মুখাবয়বের ছবি দেওয়া হয়েছে । সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি পূর্ব বর্ধমান জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক প্রাথমিক স্বপন কুমার দত্তকে গিয়ে জানাই । জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক স্কুলের সঙ্গে কথা বলে বইটি বাতিল করা হবে বলে তাঁকে জানিয়েছেন ।

ঘটনার জেরে ইতিমধ্যেই বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করেছে রাজ্য শিক্ষা দফতর । তারা ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষকা ও প্রাথমিকের দায়িত্বপ্রাপ্ত টিচার ইন চার্জকে সাসপেন্ড করেছে । ওই বই যাতে আর পড়ানো না হয় তা নিশ্চিত করতেও জেলা শিক্ষা দফতরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । শিক্ষা দফতরের এক আধিকারিক বলেন, "ইংরেজি বইটি সরকারের তরফ থেকে দেওয়া হয়নি । স্কুল স্হানীয় ভাবে তা নির্বাচিত করেছিল । কোন বই পড়ানো হচ্ছে তা ভালভাবে দেখা উচিত ছিল। এক্ষেত্রে সেই কাজে গাফিলতির জন্যই এই ঘটনা ঘটেছে ।"

Saradindu Ghosh

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 12, 2020, 9:50 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर