সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বেধড়ক মারে মৃত্যু ১ কৃষকের ও আহত আরও ২

কোন কারণ ছাড়াই বিএসএফ তিনজনকে বেধড়ক মারধর করেছে।

কোন কারণ ছাড়াই বিএসএফ তিনজনকে বেধড়ক মারধর করেছে।

  • Share this:

#মুর্শিদাবাদ:  সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বেধড়ক মারে মৃত্যু ১ কৃষকের ও আহত হয়েছেন আরও ২ জন কৃষক। মৃত কৃষকের নাম মুফাজুল শেখ (৫০)। আহতরা হলেন সানারুল শেখ ও মজিবর শেখ । এই ঘটনায় ক্ষুদ্ধ গ্রামবাসীরা সকাল থেকে সাহেবনগর বাজারে রাজ্যসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। অবরোধের সময় একটি বিএসএফের গাড়ি এলে সেই গাড়িতেও ভাঙচুর চালায় বিক্ষোভকারীরা। পরে পুলিশ এসে বিএসএফ কর্মীদেরকে উদ্ধার করে। ঘণ্টা দুয়েক অবরোধ চলার পর প্রশাসনের আধিকারিকরা উপস্থিত হয়ে আশ্বাস দিলে অবরোধ উঠে যায়।

বিএসএফের ডিআইজি কুনাল মজুমদার বলেন, ঘটনার কথা জানতে পেরেছি। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।গত সোমবার চরকা কুমারী সীমান্তে কাজ করতে যায়  মুফাজুল, সানারুল, মজিবররা।  কাজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে ওই তিনজন কৃষককে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। জলঙ্গির ১১৭ নং ব্যাটেলিয়ানের ৫ জন সেনা জওয়ান তাদের ব্যাপক মারধর করে বলেও অভিযোগ।আহত তিনজন কৃষককে চিকিৎসার জন্য সাদিখাঁরদিয়াড় গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সানারুল ও মজিবররে চিকিৎসা চললেও মুফাজুলের অবস্থা সঙ্কটজনক হলে তাকে বহরমপুর মেডিকেল কলেজে চিকিৎসারত অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে মৃত্যু হয় তাঁর।

এই ঘটনায় ক্ষুদ্ধ গ্রামবাসীরা  সাহেবনগর রাজ্যসড়কে অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে । মৃতের আত্মীয় রুনা বিবি বলেন, চরে এ কাজ করতে গেলে বিএসএফের অত্যাচারে পড়তে হয়। বারেবারে প্রতিবাদ করলেও কোন সুরাহা হচ্ছে না। বিক্ষোভকারী রফিকুল ইসলাম বলেন , কোন কারণ ছাড়াই বিএসএফ তিনজনকে বেধড়ক মারধর করেছে। ওই পরিবার ক্ষতিপূরণ না পেলে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনের নামব। বৃহস্পতিবার রাতে ৫০- র মফিজুল ইসলামের মৃত্যু হয়। এখবর ছড়িয়ে পড়তেই সীমান্তের কৃষক ও গ্রামবাসীরা রাজ্য সড়ক অবরোধ করেন। অভিযুক্ত জওয়ানদের শাস্তির দাবী করেন। যদিও ঘটনার কথা অস্বীকার করেছেন বিএসএফ কর্তারা, এরকম কোনো অভিযোগ থাকলে তা তদন্ত করে দেখা হবে বলে বিএসএফের বহরমপুর সেক্টরের ডি আই জি শ্রী কুনাল মজুমদার জানিয়েছেন।

Pranab Kumar Banerjee

Published by:Debalina Datta
First published: