• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • বিদ্যুতের দাবিতে রণক্ষেত্র ফরাক্কা, ১ জনের মৃত্যু, আহত ১৪

বিদ্যুতের দাবিতে রণক্ষেত্র ফরাক্কা, ১ জনের মৃত্যু, আহত ১৪

বিদ্যুতের দাবিতে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মুর্শিদাবাদের ফরাক্কা ৷ ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে স্থানীয়দের অবরোধ তুলতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ ৷

বিদ্যুতের দাবিতে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মুর্শিদাবাদের ফরাক্কা ৷ ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে স্থানীয়দের অবরোধ তুলতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ ৷

বিদ্যুতের দাবিতে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মুর্শিদাবাদের ফরাক্কা ৷ ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে স্থানীয়দের অবরোধ তুলতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #ফরাক্কা: বিদ্যুতের দাবিতে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মুর্শিদাবাদের ফরাক্কা ৷ ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে স্থানীয়দের অবরোধ তুলতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ ৷ মুহূর্তের মধ্যে জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে ফরাক্কা অঞ্চলের জিগরি মোড় এলাকা ৷

    পুলিশকে লক্ষ্য করে ঢিল, বোমা ছোঁড়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয়দের বিরুদ্ধে ৷ ফরাক্কার আইসি সহ ছয় থেকে সাত জন পুলিশ অফিসারের মাথা ফেটে যায় ৷ পুলিশের পাল্টা গুলি ও লাঠিচার্জে একজনের মৃত্যু হয় ৷ মৃতের নাম জামাল শেখ ৷ আহত বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষ ৷ সব মিলিয়ে জখমের সংখ্যা ১৪ ৷  এর জেরে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে যান চলাচল ব্যাহত ৷

    গত কয়েকদিন ধরে লাগাতার লোডশেডিং বিরক্ত স্থানীয় বাসিন্দারা, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে রবিবার সকালে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে ৷ দু’দিন ধরে বিদ্যুৎ নেই ওই এলাকায় ৷ বিদ্যুতের দাবিতেই রাস্তা অবরোধ করেন স্থানীয়রা ৷ তাদের দাবি, প্রাত্যহিক কাজ ছাড়াও কারেন্টের অভাবে বাচ্চাদের পড়াশুনায় অসুবিধা হচ্ছে ৷

    বিদ্যুত নিয়ে সমস্যা এই এলাকার অতি পুরনো সমস্যা ৷ হুকিং, বিদ্যুত চুরি বন্ধ করতে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্তাদের সমস্ত প্রচেষ্টাই বিফল হয়েছে ৷ বিদ্যুত চুরির বাড়বাড়ন্তের কারণেই বাসিন্দার ন্যায্য বিদ্যুৎ সংযোগ পান না ৷ তাঁদের অভিযোগ, এলাকার সমাজবিরোধীরাই এই বিদ্যুত চুরি সমস্যার মূলে রয়েছে ৷ মাঝে মাঝে এলাকা থেকে ট্রান্সফর্মার চুরির ঘটনাও ঘটে ৷ এই অভিযোগে রাজ্য বিদ্যুত বন্টন সংস্থাও নাজেহাল ৷

    রবিবার সকালে ওই এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে অবরোধ শুরু করেন আশপাশের বাসিন্দারা। তাঁদের অভিযোগ, গত কয়েকদিন ধরেই ওই এলাকার গ্রামগুলিতে টানা লোডশেডিং চলছে।  অবরোধে ব্যাহত হয় যান চলাচল ৷ খবর পেয়ে পুলিশ অবরোধ তুলতে এলে পুলিশের দিকে ইঁট, পাথর, বোমা ছোঁড়া হয় বলে অভিযোগ ৷ ঢিলের আঘাতে ৬ থেকে ৭ জন পুলিশকর্মী জখম হন ৷ ফরাক্কার আইসি সমিত দে-ও সাংঘাতিকভাবে জখম হয়েছেন ৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ পাল্টা লাঠিচার্জ করে ৷ শূন্যে গুলিও চালানো হয় ৷ পুলিশের গুলি লেগে জামাল শেখ নামে তাপ বিদ্যুতকেন্দ্রের এক ঠিকা শ্রমিকের মৃত্যু হয় ৷

    বিডিও ও জয়েন্ট বিডিওর গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ে স্থানীয়রা ৷ সরকারি বাস ও পুলিশের গাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা ৷ সব মিলিয়ে জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধে মুহূর্তে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় ফরাক্কার জিগরি মোড় ৷ বিদ্যুত দফতরের তরফে লাগাতার মাইকিং করে সাময়িক অসুবিধার জন্য ক্ষমা চাওয়া সত্ত্বেও এই ঘটনায় উদ্বিগ্ন বিদ্যুতমন্ত্রী ৷

    এলাকায় এখনও যথেষ্ট উত্তেজনা থাকায় অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী পাঠানো হয়েছে সেখানে ৷ তবে ঘটনাস্থলে যেতে না পারার জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেন ফারাক্কার বিধায়ক মইনুল হক।

    অন্যদিকে, বিদ্যুৎ দফতরের কাছে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার রিপোর্ট তলব করেছে বিদ্যু‍ৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় ৷ তাঁর কাছে ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, ‘খবর পেয়েছি, দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ৷ ওভারলোডিংয়ের কারণেই লোডশেডিং চলছিল ৷ সমস্যা সমাধানেই কাজ চলছিল ৷ কাজ শুরুর আগেই লাগাতার মাইকিং করা হয়েছিল ৷ আজ দ্বিতীয় দিন ছিল ৷ চারদিন লাগত ঠিক হতে ৷ স্থানীয়দের শান্তি বজায় রাখতে অনুরোধ করছি ৷’ কেনও ওই এলাকায় বিদ্যুতের নিরবিচ্ছিন্ন সংযোগ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না তা খতিয়ে দেখতে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন রাজ্য বিদ্যু‍ৎবণ্টন সংস্থার চেয়ারম্যান রাজেশ পাণ্ডে ৷

    First published: