দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

উপাচার্যের নামে ফেক মেল তৈরি করে টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে

উপাচার্যের নামে ফেক মেল তৈরি করে টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে

এক ই-মেল প্রাপকের সন্দেহ হওয়ায় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফোন করে সেই মেলের সত্যতা জানতে চান। তখনই বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সামনে আসে।

  • Share this:

#বর্ধমান: এবার বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের নাম করে টাকা চাওয়ার অভিযোগ উঠল। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিমাই চন্দ্র সাহার নামে মেল অ্যাকাউন্ট খুলে টাকা চাওয়া হচ্ছে বলে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, উপাচার্য নিমাই চন্দ্র সাহার নামে ভুয়ো ই-মেল অ্যাকাউন্ট খুলে তা অনেকের কাছে পাঠানো হয়েছে। সেখানে মেল করে তাদের কাছ থেকে উপহার এমনকি মোটা টাকা পর্যন্ত চাওয়া হচ্ছে। এরকমই এক ই-মেল প্রাপকের সন্দেহ হওয়ায় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফোন করে সেই মেলের সত্যতা জানতে চান। তখনই বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সামনে আসে।

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই জেলা ও রাজ্যের বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের কাছে উপাচার্যের নামে মেল করে টাকা চাওয়া হয়েছে। বিষয়টি সামনে আসতেই নড়েচড়ে বসে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসচিব উপাচার্যের নামে ফেক মেল তৈরি করে টাকা ও উপহার চাওয়ার কথা উল্লেখ করে জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। বৃহস্পতিবার সেই অভিযোগ করা হয়।

এই ব্যাপারে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিমাই চন্দ্র সাহা বলেন, এক ধরনের মানুষের এই ধরনের বিপজ্জনক প্রবণতা দেখে খুব অবাক হচ্ছি। উপাচার্যের নামে ফেক মেল তৈরি করে টাকা চাওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পায়। সঙ্গে সঙ্গে এ ব্যাপারে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে। এই ফেক মেলে কেউ যাতে প্রভাবিত না হন তা নিশ্চিত করতে বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটেও বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে। এই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও কর্মী মহলেও ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে এই ধরনের অভিযোগ পেয়ে গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত শুরু করেছে জেলা পুলিশ। বিষয়টি জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম থানাকে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে। কারা এই ফেক মেল তৈরি করেছে, কাদের কাদের এখন পর্যন্ত এই মেল পাঠানো হয়েছে, তাদের কাছে কি জন্য কত টাকা করে চাওয়া হয়েছে সেসব খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞরা।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: June 12, 2020, 8:57 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर