corona virus btn
corona virus btn
Loading

পোর্টিকো ভাঙার পরও হুঁশ ফেরেনি রেলের, ফের স্টেশনের ফলস সিলিং ভেঙে আহত পরিযায়ী শ্রমিক

পোর্টিকো ভাঙার পরও হুঁশ ফেরেনি রেলের, ফের স্টেশনের ফলস সিলিং ভেঙে আহত পরিযায়ী শ্রমিক
  • Share this:

#বর্ধমানঃ বর্ধমান রেল স্টেশনে বারেবারেই ঘটছে দুর্ঘটনা । আর তার ফলেই যাত্রী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বাসিন্দারা । বছরের শুরুতে ভেঙে পড়েছিল বর্ধমান রেল স্টেশনের পোর্টিকো-সহ বিল্ডিংয়ের একাংশ । তারও আগে ঘটেছিল ফুটওভার ব্রিজে ভিড়ে পদপিষ্ট হয়ে আহত হয়েছিলেন বেশ কয়েকজন । তারপর আবার রবিবার খসে পড়ল ফলস সিলিংয়ের একাংশ । এতে আহত হলেন কেরল ফেরত এক পরিযায়ী শ্রমিক । বার বার দুর্ঘটনা ঘটায় রেলের ভূমিকায় প্রশ্ন উঠছে । প্রশ্ন উঠছে নজরদারি নিয়েও ।

৪ জানুয়ারি রাতে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে পোর্টিকো-সহ রেল স্টেশনের একাংশ । চাপা পড়ে মৃত্যু হয় একজনের । ধ্বংসস্তূপের তলায় চাপা পড়ে গুরুতর আহত হন আরও একজন । সেই ঘটনায় রেলের ইঞ্জিনিয়ারদের নজরদারি নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সেসময় স্টেশন বিল্ডিংয়ের সৌন্দর্যায়নের কাজ চলছিল । অভিযোগ ওঠে , ইতিহাস প্রাচীন বিল্ডিংয়ের ভেতরের খবর না রেখে বাইরের চাকচিক্য বাড়ানো হচ্ছিল । ঘটনার জেরে তদন্তের নির্দেশ দেয় রেল । সংস্কারের কাজে যুক্ত ঠিকাদার সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়। পাশাপাশি তাকে আর্থিক জরিমানা করা হয়েছিল । খুব তাড়াতাড়ি পোর্টিকো সহ বিল্ডিং আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছিল রেল । এরপর পোর্টিকো ভেঙে ফেলে দিয়ে দ্রুততার সঙ্গে পুনঃনির্মাণের কাজ শুরু হয় । ৪ মার্চ  পোর্টিকো-সহ রেল স্টেশনের মূল প্রবেশ পথ খুলে দেওয়া হয় । তিন মাস পার হতেই সেই পোর্টিকোর ফলস সিলিং খসে পড়ল রবিবার ।

রবিবার সকালে সাড়ে দশটায় কেরল থেকে এসেছিল শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন । সেই ট্রেনে যাত্রীদের লাইনে দাঁড় করিয়ে ধীরে ধীরে বাইরে আনা হচ্ছিল । পোর্টিকোর  নিচে বসেছিলেন স্বাস্থ্যকর্মী-সহ বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের কর্মীরা । ভিন রাজ্য থেকে আসা কর্মীদের শারীরিক পরীক্ষার পাশাপাশি তাঁদের ওষুধ , খাবারের প্যাকেট দেওয়ার কাজ চলছিল । সেই সময় ফলস সিলিংয়ের একটা অংশ ধসে পড়ে । নিচে দাঁড়িয়ে থাকা কেরল ফেরত এক শ্রমিকের মাথায় পড়ে ভেঙে যাওয়া অংশ । ঘটনার আকস্মিকতায় আতঙ্কিত হয়ে চিৎকার শুরু করেন মহিলা স্বাস্থ্যকর্মীরা ।

রেলের নজরদারির অভাবেই বার বার এই ধরনের দুর্ঘটনা ঘটছে বলে অভিযোগ তুলছেন বাসিন্দারা । তাঁদের অভিযোগ, জল পেয়ে পোর্টিকোর ফলস সিলিং যে দুর্বল হয়ে গিয়েছে তা রেলের ইঞ্জিনিয়ারদের নজর এড়িয়ে গেল কী করে । ৪ জানুয়ারির পরও যে রেলের ইঞ্জিনিয়ারদের হুঁশ ফেরেনি এই ঘটনাই তার প্রমাণ বলে অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা । যাত্রী নিরাপত্তায় রেলের চূড়ান্ত গাফিলতির অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন বাসিন্দারা ।

Saradindu Ghosh

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 8, 2020, 3:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर