হাইকোর্টের নির্দেশে ১৩ বছর পর চাকরি ফিরে পেলেন শিক্ষক

হাইকোর্টের নির্দেশে ১৩ বছর পর চাকরি ফিরে পেলেন শিক্ষক
File Photo
  • Share this:

#জয়নগর: এভাবেও ফিরে আসা যায়? তাও শিক্ষক পদে! ১৩ বছর পর হাইকোর্টের নির্দেশে চাকরি ফিরে পাওয়াই নয়। খোদ বিচারপতির টেবিল থেকে নিয়োগপত্র নেওয়া।

২০০৬ সালে প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় পাশ করেন জয়নগরের বাসিন্দা সুহৃদ গোপাল রায়। ২০১০ সালে তাঁকে জয়নগরের হরিনারায়ণ পুর নন্দনপুর ফ্রি প্রাইমারি স্কুলে নিযুক্ত করে দক্ষিন ২৪ পরগনা প্রাইমারি কাউন্সিল। নিয়োগের ঠিক ৬ মাস পরে তাঁকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। অভিযোগ, যে নম্বর পেয়ে পাশ করেছেন সুহৃদ সেটি তার পরের পরীক্ষার্থীদের চাইতে কম। চাকরি হারিয়ে হাইকোর্টের দারস্থ হন শিক্ষক।

২০১২ সালে বিচারপতি ইন্দিরা ব্যানার্জি ডিস্ট্রিক্ট প্রাইমারি কাউন্সিলকে পূনরায় বিষয়টি বিবেচনার নির্দেশ দেন। যদিও সে নির্দেশ কার্যকরী হয়নি। ২০১৩ সালে আদালত অবমাননার মামলাও করেন সুহৃদ। তাতেও সুরহা না হওয়ায় ফের এবছর মামলা করেন তিনি।

WhatsApp Image 2019-11-21 at 9.29.39 PM

বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী নির্দেশ দেন সেইসময় বেয়াইনি ভাবে তার চাকরি বাতিল করেছিল কাউন্সিল। আদালতেই তাকে ফ্রেস নিয়োগপত্র দিতে নির্দেশ দেন তিনি। শুধু তাই নয় মামালার নিষ্পত্তি করেননি বিচারপতি। আগামী শুক্রবার এই ১৩ বছরের বেতন সুহৃদ পাবেন কি না তার বিচার হবে।

মামলাকারীর আইনজীবী শংকর দলপতি জানিয়েছেন, এই রায় অন্য মামলাকারী যারা এই ধরনের সমস্যায় রয়েছেন তাদের নতুন করে আশা যোগাবে।

First published: 10:04:37 PM Nov 21, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर