Afghanistan crisis: আফগানিস্তানে কেমন আছেন আত্মীয়রা? চিন্তায় দিন কাটছে বীরভূমে থাকা আফগানিদের

আত্মীয় পরিজনদের ভবিষ্যৎ কী হবে, তা নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন তাঁরা।

আত্মীয় পরিজনদের ভবিষ্যৎ কী হবে, তা নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন তাঁরা।

  • Share this:

    #বীরভূম: সিউড়ি কাবুলের পরিস্থিতি নিয়ে চিন্তায় বীরভূমের সিউড়িতে বসবাসকারী অফগানিস্তানের (Afghanistan) দুটি পরিবার। তাদের আত্মীয় স্বজনরা রয়েছেন সেখানে, কখনও যোগাযোগ হচ্ছে তো কখনও হচ্ছে না৷ যখন যোগাযোগ হচ্ছে না তখনই চিন্তায় পড়ছেন তাঁরা। আফগানিস্তানের মসনদে বসেছে তালিবান। সে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি এবং আত্মীয়-পরিজনদের বর্তমান অবস্থা নিয়ে রীতিমতো উদ্বিগ্ন ভারতে বসবাসকারী আফগানি বাসিন্দারা। দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে ভারতবর্ষে বসবাস করলেও তাদের মন প্রাণ পড়ে রয়েছে সেখানে থাকা স্বজনদের জন্য। তালিবানরা কাবুল দখলের পর থেকেই তাদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। মোবাইল ফোন বা ইন্টারনেট, কোন মাধ্যমেই তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি বীরভূমের সিউড়িতে থাকা আফগানি পরিবারা।

    সিউড়ি শহরের সোনাতর পাড়া, টিকিয়াপাড়া, চৌরাস্তা মোড় প্রভৃতি এলাকায় বেশ কয়েকটি আফগানি পরিবারের বসবাস। কয়েক দশক ধরে এখানে বসবাস করছেন তারা। রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং ভাল                  রোজগারের আশায় পরিবার নিয়ে দীর্ঘদিন আগে স্বদেশ ছেড়ে ভারতবর্ষে রয়ে গিয়েছেন তাঁরা। সম্প্রতি সে দেশের অস্থির রাজনৈতিক পরিবেশ তাঁদেরকে বিচলিত করেছে। আত্মীয় পরিজনদের ভবিষ্যৎ কী হবে, তা নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন তাঁরা।

    এক সপ্তাহ আগে সব ঠিকঠাক থাকলেও তার পরেই আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের দখল নিয়েছে তালিবানরা। ইতিমধ্যে সেদেশের নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি দেশত্যাগ করে পালিয়ে গিয়েছেন। তারপর থেকেই সে দেশের উদারপন্থী বাসিন্দারা চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছেন । তাদের মধ্যে বিত্তশালীরা ভিনদেশে পালিয়ে যেতে পারলেও বহু মানুষ জন সেখানেই থাকতে বাধ্য হয়েছেন। আর তাদের জন্যই গভীর উদ্বেগে ভিন দেশে বসবাসকারী আত্মীয়রা।

    সিউড়ি শহরে বসবাসকারী আফগানি আইয়ুব খান, তার ভাইপো আমির খান কাবুল শহর থেকে দূরে পাহাড়ি দুর্গম এলাকা পাখতিকার বাসিন্দা। তাদের আত্মীয় পরিজনরা সেখানে থাকলেও প্রথম পর্যায়ের তালিবানি শাসনের কারণে সেই দেশ ত্যাগ করে তাদের মধ্যে কয়েক জন ভারতবর্ষে পালিয়ে এসে বসবাস করছেন। তালিবানের কাবুল দখলের আগে পর্যন্ত তাঁরা আত্মীয় পরিজনদের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলেছেন। তারপরে বর্তমানে তাদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। ভারতবর্ষের খবরের চ্যানেলের পর্দায় চোখ রেখে সে দেশের বর্তমান ভয়াবহ অবস্থা দেখছেন। আর তাতেই তাঁরা গভীর উৎকণ্ঠায় ও চিন্তায় রয়েছেন। আইয়ুব খান এবং আমির খান বলেন,"পাহাড়ি দুর্গম এলাকায় আত্মীয়দের বসবাস৷ যেখানে না আছে ঠিকঠাক বিদ্যুৎ পরিষেবা আর না আছে মোবাইলের নেটওয়ার্ক। তার মধ্যেই বর্তমানে তালিবানি শাসন শুরু হয়েছে ওখানে। কোনও ভাবেই আমরা ওখানে থাকা আমাদের আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছিনা। একমাত্র উপরওয়ালাই জানে যে ভবিষ্যৎ কি হবে"।

    Supratim Das

    Published by:Pooja Basu
    First published: