বাজারে নকল তেল ঘি কোথায় কোথায় ছড়িয়ে গিয়েছে, জানেন কি!

বাজারে নকল তেল ঘি কোথায় কোথায় ছড়িয়ে গিয়েছে, জানেন কি!

বাজারে ছড়িয়ে পড়া সেই ঘি, ভোজ্য তেল, চকোলেট, বেবি ফুড এখনও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমানে মারাত্মক রাসায়নিক মেশানো নকল ঘি করখানার হদিশ মিললেও সে সব সামগ্রী এখন কোথায় তা এখনও জানায়নি পুলিশ প্রশাসন। এই ঘটনায় দুজন গ্রেফতার হলেও মূল চক্রীরা এখনও অধরা।

পচা মিষ্টি ও পচা মিষ্টির রসে তৈরি নকল ঘি কোথায় ছড়িয়ে রয়েছে তা জানতে চাইছেন বর্ধমানের বাসিন্দারা। নকল বনস্পতি তেল, চকোলেট বা বেবি ফুডই বা কোথায় সেই প্রশ্নও তুলছেন তাঁরা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সব নকল ঘি, ভোজ্যতেল খাওয়া মানে ক্যান্সারের মতো মারণ ব্যধিকে সাদরে আমন্ত্রণ জানানো। তাই বাজারে তা ছড়িয়ে থাকলে দ্রুত বাজেয়াপ্ত করা উচিত।

সম্প্রতি বর্ধমান শহর লাগোয়া দুবরাজদিঘি মালির বাগান মাঠ পাড়ায় বিশাল নকল ঘি তৈরির কারখানার হদিস মেলে। পচা মিষ্টি ও মিষ্টির পচা গাদ মজুত করে তাতে শরীরের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতিকর রাসায়নিক মিশিয়ে তার সঙ্গে এসেন্স মিশিয়ে তৈরি করা হতো নকল গাওয়া ঘি। তৈরি হতো নকল ভোজ্য তেল, নকল চকোলেট ও নকল বেবি ফুড। এরপর নামী ব্রান্ডের লেভেল নকল করে তা টিনের গায়ে লাগিয়ে পাচার করা হতো বাজারে।

বাজারে ছড়িয়ে পড়া সেই ঘি, ভোজ্য তেল, চকোলেট, বেবি ফুড এখনও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। তদন্তকারী পুলিশ অফিসারদের সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই নকল তেল, ঘি, গাড়ি বোঝাই হয়ে চলে যেত পাইকারি বাজারে। সেখান থেকে তা ছড়িয়ে পড়ছিল শহর, জেলা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে।

ধৃতদের জেরা করে পাওয়া সূত্র ধরে কয়েকটি বাজারে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। কিন্তু সেখানে নকল তেল বা ঘিয়ের হদিস মেলেনি। সেগুলি খুচরো বাজারে চলে গিয়েছে, না হয় অভিযানের খবর পেয়ে দ্রূত সে সব সরিয়ে ফেলেছে এই কারবারের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীরা। মূল চক্রীদের গ্রেফতার করতে তল্লাশি চলাচ্ছে পুলিশ। তাদের ধরার পর আরও তথ্য মিলবে। বর্ধমান শহর বা তার আশপাশে এই ধরনের আর কোনও কারখানা রয়েছে কিনা সে ব্যাপারেও বিস্তারিত খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

First published: February 4, 2020, 3:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर