corona virus btn
corona virus btn
Loading

দুর্দিনে রেশনে চুরি! রুখতে কড়া ব্যবস্থা প্রশাসনের

দুর্দিনে রেশনে চুরি! রুখতে কড়া ব্যবস্থা প্রশাসনের

গ্রাহকরা রেশনে যথাযথ খাদ্য সামগ্রী পাচ্ছেন কিনা তাঁরা দেখবেন। সেই সঙ্গে বাসিন্দারা যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে লাইনে দাঁড়িয়ে রেশন নেন তাও নিশ্চিত করা হবে।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: প্রতিটি রেশন দোকানে নজরদারি চালাবেন এক জন করে সরকারি আধিকারিক। এমনই নির্দেশ জারি করল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। করোনা মোকাবিলায় লক ডাউনের সময় দরিদ্র বাসিন্দাদের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া জন্য যখন রেশন ব্যবস্থার ওপর ভরসা রাখছে রাজ্য সরকার, ঠিক তখন অনেক রেশন ডিলার কম পরিমান খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠছে। অনেক জায়গায় কম পরিমান চাল আটা দেওয়ার অভিযোগ উঠছে। যার জেরে বিক্ষোভ, মারধরের ঘটনাও ঘটছে। মেমারি ও গলসিতে এই ধরনের গোলমাল হয়েছে।খন্ডঘোষেও রেশনে চাল আটা কম দেওয়ার অভিযোগে এক রেশন ডিলারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাই রেশনে কারচুপি রুখতে নজরদারি বাড়াচ্ছে জেলা প্রশাসন।

পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক বিজয় ভারতী মঙ্গলবার বলেন, আমাদের জেলায় ১৩৫০টি রেশন দোকান রয়েছে। দোকান পিছু একজন অফিসারকে দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। তাঁরা অন্তত সপ্তাহে দু দিন নজরদারি চালাবেন। গ্রাহকরা রেশনে যথাযথ খাদ্য সামগ্রী পাচ্ছেন কিনা তাঁরা দেখবেন। সেই সঙ্গে বাসিন্দারা যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে লাইনে দাঁড়িয়ে রেশন নেন তাও নিশ্চিত করা হবে।

জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা বলছেন, অনেক জায়গায় বিনা কারণে বাসিন্দারা রাস্তায় বেরিয়ে পড়ছেন এমন অভিযোগ আসছে। অনেক গ্রামেই লক ডাউনের কোনও প্রভাব নেই। সবাই এক সঙ্গে বসে আড্ডা দিচ্ছ।একই পুকুরে স্নান করছে। কোনও সাবধানতার পরোয়া করছেন না তাঁরা। জেলা শাসক বলেন, প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতের দুজন করে কর্মীর ফোন নম্বর সংগ্রহ করা রয়েছে। যেখানে যেখানে মানুষ লক ডাউন না মেনে মেলামেশা করছে বলে খবর মিলছে সেখানেই মাইকে প্রচার করে বাসিন্দাদের সচেতন করা হচ্ছে।

জেলা শাসক জানান, জেলায় মোট ৩১টি কোয়ারান্টিন সেন্টার তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি ব্লকে একটি করে কোয়ারান্টিন সেন্টার হয়েছে। এছাড়াও ছ'টি পুরসভায় একটি করে কোয়ারান্টিন সেন্টার করা হয়েছে। বর্ধমানে কৃষি খামারের কাছে রয়েছে জেলা ভিত্তিক কোয়ারান্টিন সেন্টার। সেখানে বাইরে থেকে আসা শ্রমিকদের রাখা হয়েছে।এখন পর্যন্ত দু'দফায় পাঁচ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য বেলেঘাটা আই ডি তে পাঠানো হয়েছিল। পাঁচ জনের রিপোর্টই নেগেটিভ এসেছে। এখনও পর্যন্ত এই জেলায় করোনা আক্রান্ত কাউকে পাওয়া যায় নি।

First published: April 7, 2020, 5:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर