কোথাও বড় বড় গর্ত, কোথাও হাঁটু জল...ঝাড়গ্রাম শহরের বেহাল দশায় ক্ষুব্ধ স্থানীয়রা

বেহাল দশা বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার ও ঝাড়গ্রামের বিধায়ক সুকমার হাঁসদার বাড়ির সামনের রাস্তারও। তবুও কোনও হেলদোল নেই প্রশাসনের।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 18, 2019 02:29 PM IST
কোথাও বড় বড় গর্ত, কোথাও হাঁটু জল...ঝাড়গ্রাম শহরের বেহাল দশায় ক্ষুব্ধ স্থানীয়রা
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 18, 2019 02:29 PM IST

#ঝাড়গ্রাম: কোথাও রাস্তার ধারে বড় গর্ত, আবার কোথাও একটু বৃষ্টিতেই হাঁটুজল। হাসপাতাল থেকে রাজ্য সড়ক। ঝাড়গ্রাম শহরের সর্বত্র একই ছবি। রাস্তার এমন বেহাল দশায় উদ্বিগ্ন শহরবাসী। প্রশাসনের উদাসীনতায় ক্ষুদ্ধ স্থানীয়রা।

বর্ষায় বেহাল অবস্থা ঝাড়গ্রাম শহরের জেলা হাসপাতাল ও সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে যাওয়ার প্রধান রাস্তার। নয়াগ্রাম, গোপীবল্লভপুর, সাঁকরাইল ছাড়াও ঝাড়খন্ডের রোগীদের অ্যাম্বুলেন্স ও অন্যান্য গাড়ি এই রাস্তা দিয়েই হাসপাতালে ঢোকে। তবে একটু বৃষ্টি হলেই হাঁটুজল হাসপাতালের সামনে। কোনও নিকাশি ব্যবস্থাই নেই। আশঙ্কাজনক রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে সমস্যা নিত্যদিনের।

ঝাড়গ্রাম শহরের বিভিন্ন এলাকাকে এক সূত্রে গেঁথে রেখেছে ৫ নম্বর রাজ্য সড়ক। রাজ্য সড়কের ওপর তৈরি উড়ালপুলও বেহাল। মাত্র ৫ বছরেই উড়ালপুলে বড় বড় গর্ত। প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন সাধারণ মানুষ। ব্যস্ত এই উড়ালপুলের ওপর দিয়েই লালগড়, মেদিনীপুর, বেলপাহাড়ি, বাঁকুড়া, দুর্গাপুর, আসানসোল, সিউড়ি, তারাপীঠ, পুরুলিয়া ও ঝাড়খন্ডগামী বাসগুলি যাতায়াত করে।

বেহাল দশা বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার ও ঝাড়গ্রামের বিধায়ক সুকমার হাঁসদার বাড়ির সামনের রাস্তারও। তবুও কোনও হেলদোল নেই প্রশাসনের।

First published: 02:29:19 PM Sep 18, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर