'দলে শান্তি নেই, বাংলাকে শান্ত করবে!' প্রার্থী তালিকা নিয়ে বিজেপি-কে খোঁচা অভিষেকের

'দলে শান্তি নেই, বাংলাকে শান্ত করবে!' প্রার্থী তালিকা নিয়ে বিজেপি-কে খোঁচা অভিষেকের

বিনপুরের সভায় অভিষেক৷

অভিষেক এ দিনও প্রশ্ন তোলেন, জঙ্গলমহল থেকে জেতা বিজেপি সাংসদরা গত দু' বছরে কী কাজ করেছেন?

  • Share this:

    #কলকাতা: প্রার্থী তালিকা ঘিরে বিক্ষোভের জন্য বিজেপি-কে তীব্র কটাক্ষ করলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এ দিন ঝাড়গ্রামের বিনপুরের সভা থেকে অভিষেক বলেন, যাঁরা নিজেদের দলের মধ্যেই প্রার্থী তালিকা নিয়ে শান্তি বজায় রাখতে পারছে না, তারা কীভাবে রাজ্যে শান্তি ফেরাবে?

    বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে বিজেপি৷ এই তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি নেতা, কর্মীরাই বিক্ষোভে নামে৷ তৃণমূল থেকে আসা নেতাদের প্রার্থী করায় অনেক জায়গাতে যেমন ক্ষোভ রয়েছে, সেরকমই প্রার্থী ঘিরে বিজেপি-র সংগঠনের মধ্যে অন্তর্কলহও প্রকাশ্যে এসেছে৷ আবার প্রার্থী করলেও বিজেপি-র টিকিটে লড়তে রাজি নন শিখা মিত্র বা তরুণ সাহার মতো নেতানেত্রীরা৷ প্রথম দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পরেও একই ধরনের বিক্ষোভ দেখা গিয়েছিল বিজেপি হেস্টিংস অফিসের বাইরে৷

    এ দিন বিনপুরের সভা থেকে প্রার্থী তালিকা ঘিরে বিজেপি-র অন্দরের এই ক্ষোভকেই অস্ত্র করেন অভিষেক৷ তিনি বলেন, 'প্রার্থী তালিকা কালকে ঘোষণা করেছে৷ কী অবস্থা দেখুন৷ অফিস জ্বালিয়ে দিচ্ছে, রাস্তা অবরোধ করছে, নিজেরাই নিজেদের মারছে, চিড়ছে, যা ইচ্ছে করছে৷ এর থেকে হাস্যকর কিছু হতে পারে! নিজেদের প্রার্থী তালিকা নিয়ে যারা দলের মধ্যে শান্তি বজায় রাখতে পারে না, এরা নাকি বাংলাকে শান্ত করবে৷ বলে নাকি সর্ববৃহৎ দল৷ সেই সর্ববৃহৎ দলকে একটা আঞ্চলিক দল ল্যাজে গোবরে করে দিচ্ছে৷ আগামী দিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাংলা ছাড়া করতে গিয়ে এই বহিরাগতদের দল দিল্লিছাড়া হবে৷ এই সভা থেকে কথা দিয়ে যাচ্ছি৷ এরা বাংলা, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশকে এক করে দিচ্ছে৷'

    অভিষেক এ দিনও প্রশ্ন তোলেন, জঙ্গলমহল থেকে জেতা বিজেপি সাংসদরা গত দু' বছরে কী কাজ করেছেন? এ রাজ্যে প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তৃণমূলের খেলা হবে স্লোগানকে কটাক্ষ করে বলেছিলেন, রাজ্যে উন্নয়ন হবে, কর্মসংস্থান হবে৷ পাল্টা প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে এ দিন অভিষেক বলেন, 'আপনার হেলিকপ্টার ঝাড়গ্রামে নামতে পারছে এটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়ন৷ ২০১১-র আগে তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধবাবুদের কবার দেখতে পেতেন ঝাড়গ্রামে, উত্তরবঙ্গে? একটা কালি পটকার মতো বাজির শব্দ শুনলে সব পালাত৷'

    বিনপুরের পাশাপাশি এ দিন নয়াগ্রামেও সভা করেন অভিষেক৷ সেই সভা থেকেও বিজেপি-কে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, '২ মে পদ্মফুল চোখে সর্ষে ফুল দেখবে৷'

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: