'মেরুদন্ডহীন, পাল্টিবাজ, তোলাবাজ!' নাম না করে শুভেন্দুকে তীব্র আক্রমণ অভিষেকের

এদিনের সভা থেকে শুভেন্দুকে বেইমান বলতেও ছাড়েননি অভিষেক৷

এদিনের সভা থেকে শুভেন্দুকে বেইমান বলতেও ছাড়েননি অভিষেক৷

  • Share this:

    #কলকাতা: দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র রয়েছে৷ ফলে রাজনৈতিকভাবে লড়াই চলবে৷ দাঁতন থেকে এই কথাই বলে লড়াইয়ের সুর বেঁধে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী৷ রবিবাসরীয় জমজমাট লড়াইয়ে একদিকে ছিলেন বিজেপির শুভেন্দু অধিকারী, অন্যদিকে তৃণমূলের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ রবিবার দাঁতনে শুভেন্দুর সভায় ছিল উপচে পড়া ভিড়৷ আর ডায়মন্ড হারবারের মঞ্চ থেকে চাঁচাছোলা ভাষায় নাম না করে শুভেন্দুকে আক্রমণ করে কর্মী সমর্থকদের হাততালি কুড়োলেন অভিষেক৷

    বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠছিল৷ ৭২৫ কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল নেতা অখিল গিরি৷ তার পাল্টা শুভেন্দুর দাঁতনের পথসভা থেকে তোলাবাজ ভাইপো হটাওয়ের স্লোগান ওঠে৷ তবে সেই স্লোগানের পাল্টা অভিষেকের অভিযোগ যে সারদা, নারদাকাণ্ডে তোলা নিয়েছেন শুভেন্দু৷ এদিনের মঞ্চ থেকে শুভেন্দুকে তীব্র আক্রমণ করেন তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড৷ নাম না করে শুভেন্দুকে মেরুদন্ডহীন, পাল্টিবাজ নেতা বলে কটাক্ষ করেন তিনি৷

    এদিনের সভা থেকে শুভেন্দুকে বেইমান বলতেও ছাড়েননি অভিষেক৷ অভিষেকের কথায়, ৬ মাস আগেই যে নেতারা বিজেপি হঠাও বলেছিলেন, তারাই এখন বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে বড়বড় কথা বলছেন৷ একই সঙ্গে তিনি স্পষ্ট করেছেন যে, তৃণমূল থেকে ৪টে খুচরো নেতা নিয়ে গেলে দল শেষ হয় না৷ অর্থাৎ আরও একবার দলের পক্ষ থেকে বুঝিয়ে দেওয়া হল যে, বাংলায় শেষ কথা বলে তৃণমূল কংগ্রেস৷ শুভেন্দু সহ অন্য নেতারা বিজেপিতে চলে গেলেও তাতে কোনও পরিবর্তন ঘটবে না বাংলার রাজনীতিতে৷  অধিকারী পরিবারের এখনও দুই সদস্য তৃণমূলের সঙ্গে যুক্ত৷ তাঁদের সঙ্গে এক বাড়িতে কীভাবে থাকেন শুভেন্দু, সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি৷ শুভেন্দুকে উপসর্গহীন করোনার সঙ্গেও তুলনা করেন অভিষেক৷ রবিবারে ডায়মন্ড হারবারের সভায় অভিষেকের বক্তব্যের সিংহভাগ জুড়ে ছিল শুভেন্দুকে আক্রমণ৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: