'দিলীপ ঘোষ গরুর দুধ থেকে সোনা বের করবেন, তা দিয়েই হবে সোনার বাংলা!'

'দিলীপ ঘোষ গরুর দুধ থেকে সোনা বের করবেন, তা দিয়েই হবে সোনার বাংলা!'

অভিষেকের কটাক্ষ

পুরুলিয়ায় দাঁড়িয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ যখন রাম নিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ শানাচ্ছেন, তখন পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরে দাঁড়িয়েই বিজেপির 'বাংলা-বিদ্বেষ' নিয়ে সুর চড়ালেন তৃণমূল সাংসদ তথা যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়।

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: বাংলায় ক্ষমতায় আসতে 'সোনার বাংলা' স্লোগানই এখন তুরুপের তাস বিজেপির। মাত্র পাঁচ বছরের মধ্যেই বাংলার হাল-হাকিকত পালটে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে গেরুয়া শিবির। যদিও পালটা হিসেবে তৃণমূল বলছে, সোনার উত্তরপ্রদেশের যে হাল দেখা যাচ্ছে, তাতে আর সোনার বাংলার প্রয়োজন নেই এ রাজ্যের মানুষের। আর এদিন পুরুলিয়ায় দাঁড়িয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ যখন রাম নিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ শানাচ্ছেন, তখন পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরে দাঁড়িয়েই বিজেপির 'বাংলা-বিদ্বেষ' নিয়ে সুর চড়ালেন তৃণমূল সাংসদ তথা যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়। বিজেপির জাতীয় স্তরের নেতাদের উদ্দেশে তাঁর কটাক্ষ, 'সোনার বাংলা গড়বেন বলছেন, অথচ সোনার শব্দটাও এরা বলতে পারে না, বলে শুনার।' একইসঙ্গে বিজেপির 'সোনার বাংলা' স্লোগানকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, 'দিলীপ ঘোষ গরুর দুধ থেকে সোনা বের করবেন, তা দিয়েই হবে সোনার বাংলা।'

    মঙ্গলবার প্রকৃতপক্ষেই বিজেপিকে বাঙালি বিদ্বেষী হিসেবে দেখাতে চেয়েছেন অভিষেক। যে পুরুলিয়ায় গত লোকসভা ভোটে কার্যত ধুয়েমুছে গিয়েছে তৃণমূল, সেখানে দাঁড়িয়েই অভিষেক বলেন, 'বিজেপির প্রার্থী তালিকায় প্রার্থীদের নামটুকুও বাংলায় লেখা নেই। এরা নাকি বাংলা গড়বে।' তৃণমূল নেতার চ্যালেঞ্জ, 'ক্ষমতা থাকলে তথ্য নিয়ে তর্কে আসুন। মমতার দশ বছর আর মোদির সাত বছরের তুলনা হোক। ক্ষমতা আছে বিজেপির বড় নেতাদের? থাকলে আমার মুখোমুখি বসুন।'

    বিধানসভা যে তাঁদের দখলেই থাকছে, এদিন সেই আত্মবিশ্বাস ঝরে পড়েছে তৃণমূল সাংসদের গলায়। বলেন, 'মিডিয়া কিনে, মিথ্যে প্রচার করে যতই দাবি করুন, বাংলায় আসছেন, ২ মে প্রমাণ হয়ে যাবে, বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়। তৃণমূল হারলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।' রঘুনাথপুর, মানবাজার ও পুরুলিয়া - এই তিনটি বিধানসভায় দলীয় প্রার্থীদের হয়ে নির্বাচনী প্রচার করছেন অভিষেক।

    নন্দীগ্রামে আহত হওয়ার পর, গতকালই প্রথম জেলা সফরে গিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুরুলিয়ায় জোড়া সভা করেন তৃণমূলনেত্রী। হুইলচেয়ারে বসেই ভাষণ দেন তিনি। এদিন সেই পুরুলিয়াতে তিনটি সভা করছেন মমতা। গত বিধানসভা নির্বাচনে পুরুলিয়াতে ভাল ফল করেছিল তৃণমূল। জেলার ৯টি বিধানসভার মধ্যে ৭টিই তারা দখল করে। ২টি আসন পায় কংগ্রেস। শূন্য হাতে ফিরতে হয় বিজেপিকে। কিন্তু সব হিসেবে উলটে যায় লোকসভায়। প্রবল গেরুয়া ঝড়ে চাপে পড়ে তৃণমূল। কিন্তু বিধানসভায় আর তা চান না তৃণমূল নেতৃত্ব, ফলে পুরুলিয়াকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে ঘাস-ফুল শিবির।

    Published by:Suman Biswas
    First published: