corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনার সংক্রমণ মিলতেই বাড়ল পুলিশি তৎপরতা, সিল করা হল বর্ধমানের একাংশ

করোনার সংক্রমণ মিলতেই বাড়ল পুলিশি তৎপরতা, সিল করা হল বর্ধমানের একাংশ

জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানিয়েছেন, ওই এলাকায় বাইরের কাউকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। একইভাবে এলাকার বাসিন্দাদের বাইরে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না।

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমান শহরে করোনা আক্রান্তের হদিস মিলতেই তৎপরতা বাড়াল পুলিশ। করোনা আক্রান্ত ওই মহিলা বর্ধমানের সুভাষপল্লীএলাকার বাসিন্দা। মঙ্গলবার সকাল থেকেই ওই এলাকা সিল করে দেওয়া হয়। বর্ধমান রাজ কলেজের পাশে সুভাষপল্লীতে ঢোকার মুখে বাঁশের ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে। একইভাবে ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে জি টি রোডের দিকে কলেজ মোড়েও।তাছাড়াও অন্যান্য গলিপথও সিল করে দেওয়া হয়েছে। সেখানে সর্বক্ষণের জন্য পুলিশ কর্মী মোতায়েন থাকছে।

জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানিয়েছেন, ওই এলাকায় বাইরের কাউকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। একইভাবে এলাকার বাসিন্দাদের বাইরে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। কারও কোনও কিছুর প্রয়োজন হলে তা এনে দেবে পুলিশকর্মীরাই। আক্রান্ত ওই মহিলার স্বামী বিদ্যুৎ দফতরে কাজ করেন। তিনি নিয়মিত অফিস যাতায়াত করছিলেন। তাঁকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি বর্ধমান কোর্ট কম্পাউন্ড লাগোয়া বিদ্যুৎ দপ্তরের সেক্টর টু অফিস ও ডিভিশনাল অফিস বন্ধ করে দেওয়া হয়।

জেলাশাসক জানিয়েছেন, ওই দুই অফিস ভালোভাবে স্যানিটাইজ করার পর তা আবার চালু করা হবে। যে গাড়িতে করে ওই মহিলা কলকাতা থেকে ফিরেছিলেন সেই গাড়িটি বিদ্যুৎ দফতরে ব্যবহার করা হয়। মহিলার  স্বামী ওই গাড়ির ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। গাড়িচালক বর্ধমানের মুচিপাড়া এলাকার বাসিন্দা। ওই মহিলাকে আনার পর বিদ্যুৎ দফতরের একাধিক অফিসার ওই গাড়ি ব্যবহার করেছিলেন। জেলাশাসক জানিয়েছেন, ওই গাড়ির চালককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ওই গাড়ি যাঁরা ব্যবহার করেছিলেন বা চালকের সংস্পর্শে এসেছিলেন তাদের সকলকে কোয়ারেন্টিন সেন্টারে রাখা হবে। তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হবে।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 5, 2020, 4:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर