৬০০ কেজি চালের নিরামিষ পনির বিরিয়ানিতে রাস্তার নেড়িদের পিকনিক হল বারাসতে!

৬০০ কেজি চালের নিরামিষ পনির বিরিয়ানিতে রাস্তার নেড়িদের পিকনিক হল বারাসতে!
প্রতীকী চিত্র ৷

বড়দিনে ভাল খাবার পথের শিশুদের।আর সারমেয় প্রেমীদের আয়োজনে পিকনিক বারাসতে।

  • Share this:

RAJARSHI Roy

#বারাসত: ওদেরও ক্রিসমাস হয়। চড়ুইভাতিও হয়। বড়দিনে পনির বিরিয়ানীতে জমিয়ে পিকনিক পথের সারমেয়দের। উত্তর ২৪ পরগনার জেলা সদর শহর বারাসতে এখানে ওখানে লাথি ঝাঁটা খাওয়া- রাস্তার, চলতি ভাষায় নেড়ি কুকুরদের নিয়ে হয় এই পিকনিক । আজ বারাসতে এই উৎসবটি হয় দু’টি ভাগে, দু’টি ভিন্ন অনুষ্ঠানে । শতাধিক পথ শিশুকে সঙ্গ দিয়ে, আদর ভালোবাসা ও সীমিত খাদ্য দিয়ে বাকি সময় কাটল স্ট্রিট ডগদের নিয়ে । দু’টি প্রচেষ্টাই ছিল নজরকারা। সকাল থেকে বারাসাত কে বি বসু রোডে ছোট বাজারের কাছে শ’খানেক কুকুরের জন্য বিরিয়ানি রান্না শুরু করেন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার লোকজন। সীমিত সামর্থ্য নিয়ে তাঁরা রাস্তার কুকুরদের খাবার দেওয়া শুরু করেন । রীতিমত গ্যাটের কড়ি খরচ করে রান্না খাবার ভ্যানে তুলে এ গলি সে গলি ঘুরে সারমেয় দের স্বস্নেহ খাবার তুলে দিয়েছেন তাঁরা। কখনও ভোলা আবার কখনও বা টমি টমি ডাকে কুকুরকে ডেকে এনেছেন খাবারের কাছ। ঘ্রানে দৌড়ে এসে চেটে পুটে খেয়েছে তারা । মাংসাশী এই জীব নিরামিষ বিরিয়ানিও উপভোগ করেছে বলে দাবী অর্পিতা চৌধুরীর। তাঁর আরও দাবী শুধুই তারা নেড়ি কুকুরের কথা ভেবে রাস্তায় বের হননি। বড়দিনটিকে তাঁদের নিজের পরিবারকে সময় না দিয়ে তাঁরা দিনটিকে বেছে নিয়েছেন অবহেলিতদের সেবা করতে । তাঁরা মনে করেন, পৃথিবীর বৃহত্তর পরিসরে তাঁরা সকলেই একই পরিবারের সদস্য । সেখানে ভেদাভেদ নেই, উচ্চনীচ নেই । তাই তো কেক, কমলালেবু দিয়ে শিশুদের সঙ্গে সকালবেলা কাটিয়ে বাকি সময় উদযাপন চলল ছয়শো কেজি চাল দিয়ে প্রস্তুত পনির বিরিয়ানি দিয়ে । উল্লেখ্য যে উপাদান সামগ্রী দিয়ে বিরিয়ানি প্রস্তুত তা চমকে দেওয়ার মত । তাঁদের সামর্থ্য ছাড়িয়ে তাঁদের আয়োজন । কোণে কোণে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কুকুররা সাড়াও দিল কার্যত তাদের বনভোজনে । পাশাপাশি সারিবদ্ধ কুকুরদের খাওয়াদাওয়ার উৎসব উৎযাপনে ছিল চোখে পড়ার মত শৃঙ্খলা । অনুষ্ঠান ছিল ব্যতিক্রমী, কিন্তু সবকিছুকেই ছাড়িয়ে উজ্জ্বল ছিল মানবিকতা।

First published: 09:38:40 PM Dec 25, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर