ঠিক মানুষের মতো! জানলার ধারে বসে বিস্কুট খেতে খেতে ট্রেনে সফর করল হনুমান

ঠিক মানুষের মতো! জানলার ধারে বসে বিস্কুট খেতে খেতে ট্রেনে সফর করল হনুমান

সহযাত্রী এক হনুমানকে দেখে আতংকে উঠল বারাসাত বনগাঁ শাখার যাত্রীরা। কেউ বা মজা করে ছবি ও সেলফি তুলল।

  • Share this:

RAJARSHI ROY

#বারাসত: বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ২৫-এর বারাসাত-বনগাঁ লোকাল। মূলত অফিস যাত্রীদের বনগাঁ যাওয়ার ট্রেন এটি। প্রতিদিনের মত বারাসত স্টেশনের পাঁচ নং প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে রয়েছে বারাসত-বনগাঁ লোকাল। বনগাঁর দিকে লেডিস কম্পার্টমেন্টের পরের বগির সামনের দৃশ্যটা ছিল একটু অন্যরকম। আর পাঁচদিনের মত যাত্রীদের আনাগোনা, হকারের হাজার চিৎকার। আর তার মধ্যে প্লাটফর্মে হাজির আর একজন, পবনপুত্র হনুমান।

প্রাণীটিকে দেখে নিজের টিফিনের বক্স সামলে লাফ দিয়ে ট্রেনে উঠছেন যাত্রীরা। সিট নিয়ে আরামে গন্তব্যে যেতে চায় সবাই। প্লাটফর্মে ট্রেন দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় হঠাৎই হনুমানটি উঠে পড়ল ট্রেনে। হুলস্থূল অবস্থা তখন নিত্যযাত্রীদের মধ্যে। ৮টা২৫ বাজতে বেশ কয়েক মিনিট বাকি। যাত্রীরা চেষ্টা করছেন হনুমানকে বাঁচিয়ে নিজের জায়গা ঠিক রাখতে। এরই মধ্য হুইসেল দিয়ে ট্রেন ছেড়েও দিল।

2890_IMG-20200109-WA0002

মানুষের মত সেও দখল করল একটি আসন। একেবারে সিটের তৃতীয় আসনে বসে পড়ল হুনমানটি। আস্তে আস্তে, মানে মানে সরে এলেন অন্যযাত্রীরা। খালি সিট পেয়ে একেবারের জানালার আসনটি নিয়ে চলন্ত ট্রেনে প্রকৃতি দেখতে থাকলো সে। এই সুযোগে মুঠো ফোনে দেদার ছবি তোলা শুরু হল। এই ট্রেনের যাত্রী ছিলেন বারাসতের এক ব্যবসায়ী। তাঁর নাম অভিজিৎ বসু। তিনি জানান, ব্যবসার কাজে হাবরা যাচ্ছিলেন তিনি। ঐ বগিতে উঠে দেখেন, হনুমানও ট্রেনের যাত্রী হয়েছে। অন্যদের মত তিনিও প্রথমে চমকে ওঠেন। তারপর দেখেন সিটে বসে মানুষের মতই স্বাভাবিক আচরন করে দিব্যি সিটে বসে রয়েছে সে। অন্য যাত্রীদের মতই মোবাইলে ছবিও তুললেন তিনিও। তাঁর কথায়, এমন সহযাত্রী পাওয়া তো বিরল ঘটনা। হনুমানটি একাই ট্রেনে উঠছে বলে জানান তিনি।

অভিজিতের সঙ্গে এই ট্রেনে যাচ্ছিলেন নিমাই কর। তিনি বলেন, ‘‘খুবই শান্তভাবে হনুমানটি ট্রেনের মধ্যে বসে গেল। হনুমানটি মাত্র একটি স্টেশন গিয়ে বামনগাছিতে ট্রেন থামতেই নেমে পড়ে। এরই মাঝে এক যাত্রী বিস্কুটের প্যাকেট ছিঁড়ে দিয়েছে তাকে। অভিজিৎ বসুর কথায় হনুমান চলন্ত ট্রেনে বিস্কুট পেয়ে বেশ মজায় ছিল। কিন্তু যাত্রীরা ভয়ে ভয়েই ছিলেন।

First published: 02:02:27 PM Jan 09, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर